বান্দরবানে জেএসএস নেতা গ্রেফতারঃ আঞ্চলিক পরিষদ সদস্যসহ ৩৮ জনের নামে মামলা

আইপিনিউজ ডেস্কঃ বান্দরবানে জনসংহতি সমিতির জেলা কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক উচসিংকে ১৪ জুন গভীর রাতে মধ্যম পাড়া থেকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি সেখানে একটি ভাড়া বাড়িতে পরিবার নিয়ে থাকতেন। বান্দরবান থানা সূত্র জানাচ্ছে বান্দরবান উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মংপু মারমার অপহরণ মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া পুলিশ কালাঘাটাস্থ জনসংহতি সমিতি সভাপতি উছোমং-এর বাসভবনেও অভিযান চালায়। সেই সময় উছোমং বাসায় না থাকায় গ্রেফতার এড়াতে সক্ষম হন। উল্লেখ্য ১৩ জুন সোমবার রাতে রাজভিলার নিজ বাড়ী থেকে কে বা কারা মংপুকে তুলে নিয়ে যায়। তারপর আওয়ামী লীগ জনসংহতি সমিতিকে এই ঘটনার জন্য দায়ি করে। অবশ্য জেলা জনসংহতি সমিতি অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। এই সূত্র ধরে পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের দুই সদস্য কে এস মং মারমা ও সাধুরাম ত্রিপুরাসহ ৩৮ জনের বিরুদ্ধে বান্দরবান থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় রোয়াংছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা জনসংহতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ক্যবামংকেও আসামি করা হয়। জনসংহতি সমিতি জেলার ও কেন্দ্রীয় অনেক নেতার নামেও মামলা দায়ের করা হয়।
এইদিকে গ্রেফতারকৃত উচসিংকে ১৫ জুন বুধবার জেলা মেজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। আদালতে সরকারপক্ষ ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন জানায়। আদালত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। জনসংহতি সমিতির নেতাকে আটক ও আঞ্চলিক পরিষদ সদস্যসহ জেলার শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের ঘটনায় বান্দরবানের রাজনৈতিক অঙ্গণে থমথমে ভাব বিরাজ করছে।
ঘটনার প্রতিবাদে ১৬ জুন বৃহস্পতিবার জেলা জনসংহতি সমিতি রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করবে। একই দাবিতে ১৬ জুন পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ ঢাকায় মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *