কল্পনা চাকমা অপহরণের ২০ বছর

আইপিনিউজ ডেস্কঃ কল্পনা চাকমা হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক। রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ির নিউ লাল্যাঘোনা গ্রামে তার বাড়ী। তিনি ১৯৯৬ সালে ১২ জুন দিবাগত রাতে তার নিজ বাড়ী থেকে অপহরণের শিকার হন। তার পরিবারের সদস্যরা অপহরণকারীদের চিনতে পারেন। স্থানীয় কজইছড়ি সেনাক্যাম্পের তৎকালীন কমান্ডার লেঃ ফেরদৌস-এর নেতৃত্বে কল্পনা চাকমাকে তার নিজ বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। সেসময় কল্পনার বড় ভাই ও পরিবারের সদস্যরা বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু রাষ্ট্রীয় বাহিনীর ক্ষমতা সেই বাঁধাকে উপেক্ষা করে। কল্পনা চাকমা সেই সময় কাচালং কলেজ-এর ছাত্রী ছিলেন। তিনি পাহাড়ী জনপদের চির দুঃখী মানুষদের মুক্তির এক লড়াকু সৈনিক ছিলেন। পাহাড়ে সেই সময়কার যে বদ্ধ জীবন সেই জীবনকে আলোর পথে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। তিনি নারী মুক্তির স্বপ্ন দেখতেন। জুম্ম জাতির স্বাধিকারের আন্দোলনে নিজেকে সমর্পিত করেছিলেন। তাই রাষ্ট্র শক্তির প্রতিনিধিত্বকারী লে. ফেরদৌস কল্পনা চাকমার এই ঔদ্ধত্যকে সহ্য করেনি। সেই কারণে কল্পনাকে অপহরণ করা হয়। অপহরণের পর পরই কল্পনার পরিবারের সদস্যরা লেঃ ফেরেদৌস সহ অপহরণকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
কল্পনাকে অপহরণের পর দেশব্যাপী প্রতিবাদের ঝর উঠে। সেই সময়কার গণমাধ্যম খবরটি ধারাবাহিকভাবে গুরুত্বের সাথে প্রচার করে। শুধু দেশে নয় আন্তর্জাতিক মহলও এই বিষয়ে সোচ্চার প্রতিবাদে সামিল হয়। অপহরণের প্রতিবাদ করতে গিয়ে ২৭ জুন ১৯৯৬ পাহাড়ে অবরোধ কর্মসূচী পালিত হয়। বাঘাইছড়িতে অবরোধ চলাকালীন সময় পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের তিনজন অকুতোভয় কর্মী জীবন উৎসর্গ করেন। রূপম, সুকেশ, মনতোষ এই তিন জনের রক্তে রঞ্জিত হয় বাঘাইছড়ির মাটি। কল্পনাকে উদ্ধারের দাবিতে চলামান আন্দোলন জাতীয় আন্দোলনে পরিণত হতে শুরু করে। তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের টনক নড়ে। একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারকের নেতৃত্বে গঠিত হয় তদন্ত কমিটি। কিন্তু সেই তদন্ত রিপোর্ট অপহরণের ২০ বছরেও প্রকাশিত হয়নি। অপহরণ মামলাটিরও কোন নিষ্পত্তি হয়নি।
১২ জুন ২০১৬ কল্পনা চাকমা অপহরণের ২০ বছর। অপহরণের ২০ বছর নিয়ে বিশ্বব্যাপী জনমত গঠন করতে আন্তর্জাতিক মানমাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ফটো অ্যাকশন কর্মসূচী হাতে নিয়েছে। ১১ জুন ঢাকায় মৌলিক অধিকার সুরক্ষা কমিটি জাতীয় প্রেসক্লাবে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। ১২ জুন কল্পনা অপহরণ দিবসে পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতি ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখ প্রাঙ্গণে প্রতিবাদ সমাবেশ করবে। বান্দরবান জেলা মহিলা সমিতি জেলা শহরে মিছিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। ১২ জুন রাজধানীর সেগুন বাগিচাস্থ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *