ইউপি নির্বাচনের জেরঃ বান্দরবানে যুব সমিতির নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বান্দরবান সদরের কুহালং ইউনিয়নের নির্বাচনকে ঘিরে সহিংসতার খবর পাওয়া গেছে। ৩১ মে সকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম যুব সমিতির কুহালং ইউনিয়নের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সুনীল কান্তি চাকমার মরদেহ (৩৫) কিবুক পাড়া থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। স্থানীয়রা জানান সকালে গ্রামের রাস্তার পাশে মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী থানাকে অবহিত করে। পরে পুলিশ এসে মরদেহ নিয়ে যায়। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান মরদেহে ধারালো অস্ত্র দ্বারা কোপানোর আঘাত আছে। সুনীল কান্তি চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির যুব সংগঠন যুব সমিতির স্থানীয় নেতা ছিলেন।
উল্লেখ্য সুনীল চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমর্থিত কুহলং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর পক্ষে কাজ করছিলেন। ৩০মে নির্বচানী প্রচারণার সময় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকরা সুনীল কান্তিকে হুমকী প্রদান করে বলে জেলার জনসংহতি সমিতির নেতৃবৃন্দ সংবাদকর্মীদের কাছে অভিযোগ করেন। নির্বাচনে ভীতিকর অবস্থা তৈরী কারার জন্য প্রতিপক্ষ এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে দলটির নেতৃবৃন্দ ধারণা করছেন। জনসংহতি সমিতি ও যুব সমিতির বান্দরবান জেলার নের্তৃবৃন্দ অবিলম্বে হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ নিয়েও শংকা প্রকাশ করেছেন। সুনীল চাকমার হত্যাকাণ্ড নিয়ে বান্দরবান থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। ৪জুন শেষ দফায় অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দিন কুহালং ইউনিয়েনর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *