কাতালুনিয়ার গণভোটঃ রায় স্বাধীনতার পক্ষে

স্পেনের কাতালুনিয়ার স্বাধীনতার প্রশ্নে গণভোটে অঞ্চলটি স্বাধীনতার পক্ষে রায় পেয়ে রাষ্ট্র গঠনের অধিকার পেয়েছে বলে দাবি করেছেন আঞ্চলিক নেতা কার্লেস পুজদেমন।
রোববার স্পেনীয় পুলিশের ব্যাপক বাধা সত্বেও স্বায়ত্তশাসিত কাতালুনিয়ায় স্বাধীনতার প্রশ্নে গণভোটে অংশ নেয় কাতালানবাসীরা, খবর বিবিসির।

কাতালান কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ৪২ দশমিক তিন শতাংশ ভোট পড়েছে এবং ভোটারদের ৯০ শতাংশ স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

একতরফাভাবে স্বাধীনতা ঘোষণার দরজা উন্মুক্ত হয়ে গেছে বলে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ভাষণে দাবি করেছেন পুজদেমন। ভাষণের সময় অন্যান্য জ্যেষ্ঠ কাতালান নেতাদের পুজদেমনকে ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

তিনি বলেন, “আশা ও দুর্ভোগের এই দিনগুলোতে কাতালুনিয়ার নাগরিকরা প্রজাতান্ত্রিক স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের অধিকার অর্জন করেছে।

“আমার সরকার, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই আজকের এই ভোটের ফলাফল কাতালান পার্লামেন্টে পাঠাবে যেন পার্লামেন্ট গণভোটের আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে পারে। পার্লামেন্টেই আমাদের জনগণের সার্বভৌমত্ব বিরাজ করছে।”
এরপর থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) আর ‘অন্যভাবে দেখা চালিয়ে যেতে’ পারবে না বলে জানান তিনি।
স্পেনের সাংবিধানিক আদালত স্বাধীনতার প্রশ্নে কাতালুনিয়ার গণভোটকে অসাংবিধানিক ঘোষণা করার পর ভোট বন্ধ করার পদক্ষেপ নিয়েছিল স্পেনীয় সরকার।

গণভোট বন্ধের চেষ্টায় পুলিশের শক্তি প্রয়োগে সৃষ্ট সহিংসতায় ৭৬১ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কাতালুনিয়ার জরুরি বিভাগের কর্মকর্তারা।

পুলিশ কর্মকর্তারা কিছু মানুষকে ভোট দেওয়া থেকে বিরত রাখতে সক্ষম হয় এবং ভোট কেন্দ্র থেকে ব্যালট পেপার ও ব্যালট বাক্স জব্দ করে নিয়ে যায় বলে জানিয়েছে বিবিসি।

কাতালুনিয়া অঞ্চলের রাজধানী বার্সেলোনায় পুলিশ গণভোটপন্থিদের প্রতিরোধ দমনে লাঠি চার্জের পাশাপাশি রাবার বুলেটও নিক্ষেপ করে।

স্পেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সহিংসতায় ১২ জন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন এবং তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় রোববার রাত ৮টায় ভোট গ্রহণ বন্ধ হওয়ার কিছুক্ষণ পর স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাখয় ‘অবৈধ ভোটে অংশ নিয়ে কাতালানরা বোকা বনেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন।

এর আগে পুলিশের ভূমিকার সমালোচনা করে পুজদেমন বলেছিলেন, “স্প্যানিশ রাষ্ট্রের এই অন্যায় সহিংসতা কাতালান জনগণের ইচ্ছাকে দমাতে পারবে না।”

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *