ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলতি বছরের ভর্তিযুদ্ধ শুরু হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরে অর্ধশতাধিক কেন্দ্রে শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এই পরীক্ষা চলে।

মোবাইল ফোনসহ টেলিযোগাযোগ করা যায় এমন যে কোনো ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ ছিল নিষিদ্ধ।

বিষয়টি নিশ্চিত করতে ভর্তিচ্ছুদের হলে ঢোকার আগে সার্চ করা হয়েছে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে। পাশাপাশি পরীক্ষার সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতও দায়িত্ব পালন করে।

‘গ’ ইউনিটের ১ হাজার ২৫০টি আসনের বিপরীতে এবার ভর্তিচ্ছুর সংখ্যা ২৯ হাজার ৩১১ জন। অর্থাৎ প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তির লড়াইয়ে ছিলেন ২৪ জন।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের লাগোয়া ৫৩টি কেন্দ্র ছাড়াও লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ, নীলক্ষেত হাই স্কুল, আজিমপুর সরকারি গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং অগ্রণী স্কুল ও কলেজ কেন্দ্রে তাদের পরীক্ষা নেওয়া হয়।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেন, “সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক আমজাদ আলী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, একটি চক্র ফেইসবুকের মাধ্যমে পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তিতে সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছিল। সেখানে তারা একটি ফোন নম্বরও দেয়। বিষয়টি নজরে এলে রাতেই তা গোয়েন্দা পুলিশকে জানানো হয়।

“ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় ডিভাইসের মাধ্য পরীক্ষার্থীদের সহায়তা দেওয়ার এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু এক ঘণ্টা আগে প্রশ্নপত্র দেওয়ার কথা ফেইসবুকে বলছিল চক্রটি।”

ভর্তি পরীক্ষায় সব ধরনের জালিয়াতির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন. “জালিয়াত চক্রের বিষয়টি ডিবি পুলিশের নজরে দেওয়া হয়েছে। তারা বিষয়টি দেখছে।”

সব মিলিয়ে বিশ্ববিদ্যারয়ের পাঁচটি ইউনিটে ৭ হাজার ১২৩ আসনের বিপরীতে মোট ২ লাখ ৬৩ হাজার ৩৯ জন আবেদন করেছে এবার। এই হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে পরীক্ষার্থী থাকছেন ৩৭ জন।

শনিবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা চারুকলা অনুষদভুক্ত ‘চ’ ইউনিটের সাধারণ জ্ঞান অংশের পরীক্ষা হবে। ভর্তির আসনবিন্যাস বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (http://admission.eis.du.ac.bd) থেকে জানা যাবে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *