অনুপ্রবেশের সময় আড়াই হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার কারণে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাফ নদীর বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে অনুপ্রবেশের সময় আড়াই হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি।
বিজিবির টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর সাইফুল ইসলাম জমাদ্দার জানান, মঙ্গলবার ভোর রাত থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত নাফ নদীর কাঞ্জরপাড়া, ঝিমংখালী, উলুবনিয়া, খারাংখালী ও লম্বাবিল পয়েন্ট দিয়ে তাদের ফেরত পাঠানো হয়। অনুপ্রবেশের চেষ্টাকারীরা অধিকাংশই নারী ও শিশু।
সাইফুল বলেন,পালিয়ে সীমান্তের মিয়ানমার অভ্যন্তরে শূণ্যরেখায় অবস্থান করা রোহিঙ্গারা নাফ নদীর এসব পয়েন্ট দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালায়। “এ সময় বিজিবির টহলদলের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে দুই হাজার ৬৭৮ জন রেহিঙ্গাকে মিয়ানমার অভ্যন্তরে ফেরত পাঠায়।”
অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজিবির সদস্যরা সীমান্তে কড়া অবস্থানে রয়েছে।এখনও বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা শূণ্যরেখার ওপাড়ে অবস্থান নিয়েছে বলে জানান সাইফুল।

গত ২৪ অগাস্ট রাতে মিয়ানমারের রাখাইনে একসঙ্গে ৩০টি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনা ক্যাম্পে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার পর রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। ওই রাতের পর থেকে এ পর্যন্ত শতাধিক নিহতের খবর পাওয়া গেছে; যাদের মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যও রয়েছেন।

আরও সহিংসতার আশঙ্কায় হাজার হাজার রোহিঙ্গা নাফ নদী ও স্থল সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছে। সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশ অংশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের লক্ষ্য করে মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষীদের গুলি করার ঘটনাও ঘটেছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার কর্মকর্তাদের হিসাবে, রাখাইনে নতুন করে সহিংসতা শুরুর পর গত এগারো দিনে ৮৭ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। অবশ্য এই সংখ্যা কয়েক গুণ বেশি বেলে স্থানীয়দের ধারণা।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *