মধুপুরে চলন্ত বাসে ধর্ষণ ও হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

গত ২৫ আহস্ট টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হয়েছেন রুপা নামের এক তরুণী। এ ঘটনায় ধর্ষক ও খুনী শামীম, আকরাম জাহাঙ্গীরসহ সকল আসামির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আজ বিকেল ৪টায় ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে নাগরিক সমাজের মঞ্চ জনউদ্যোগ, ইউথ ফর পিস্ অ্যান্ড জাস্টিস (ওয়াইপিজে), এসোসিয়েশন ফর সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট অব বাংলাদেশ (এএসডিবি), আদিবাসী যুব পরিষদ, চানচিয়া ও হিউম্যান রাইটস্ ডিফেন্ডার্স ফোরাম (এইচআরডি)। আইইডির সহযোগিতায় ফেরদৌস আহম্মেদ উজ্জলের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন শিশুকিশোর সংগঠক ড.লেলিন চৌধুরী, জনউদ্যোগের তারিক হোসেন মিঠুল, যুব ইউনিয়নের হাফিজ আদনান রিয়াদ, যুব ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় নেতা খান আসাদুজ্জামান মাসুম, লেখক-গবেষক পাভেল পার্থ, কৃষকনেতা মানবেন্দ্র দেব, ওয়াইপিজে’র ফেরদৌস আহমেদ উজ্জল, এএসডিবি’র সঞ্চিতা তালুকদার, আদিবাসী যুব পরিষদের হরেন্দ্রনাথ সিং, চানচিয়ার অ্যান্থনী রেমা, আন্তর্জাতিক রবিদাস উন্নযন পরিষদের গৌতম রবিদাসসহ রাজনীতিবিদ, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন, সামাজিক, ছাত্র, যুব ও সাংস্কৃতিক, সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও নাগরিকবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, এর পূর্বেও বাস, মাইক্রোবাস, নৌকাসহ বিভিন্ন যানবাহনে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে, ধর্ষণের পর হত্যা, আলামত বিনষ্ট করাসহ একের পর এক নারী নিপীড়ণ ও ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। এসব ঘটনারও সুষ্ঠু বিচার হয়নি। প্রায় প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে আবার হাসপাতালের প্রতিবেদন রহস্যজনকভাবে পরিবর্তন হয়ে যায়। আলামত পরিবর্তনের এ সংস্কৃতি বন্ধ করতে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করার দাবি জানান। পাশাপাশি প্রায়শই বিভিন্ন মহল ধর্ষণের মতো ঘৃণ্য অপরাধকে ভিন্ন ক্ষাতে প্রবাহিত করতে সচেষ্ট হয় বা আপোষ মিমাংসা করার জন্য বাদি পক্ষকে চাপ প্রয়োগ করে থাকে। অথচ প্রকৃত অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতার করতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করে না। গ্রেফতার হলেও বিচার হয়না। এসব ব্যর্থতা ও অনৈতিক তৎপরতায় প্রকৃত অপরাধীরা আরো সাহসী হয়ে ওঠে। নারীরা আজ সমাজে নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েছে। ঘরে বাইরে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কর্মস্থল সর্ব্বত্র নারীদের জন্য বিপদ ওঁৎ পেতে থাকে। ফলে নারীর অগ্রযাত্রায় নিরাপত্তাহীনতা আজ প্রধান অন্তরায় হয়ে উঠেছে। নেতৃবৃন্দ, অবিলম্বে এই ধর্ষণ ও হত্যাকা-সহ সকল ঘটনায় অভিযুক্তসহ আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির নিশ্চিত করতে সরকারের কাছে জোর দাবি জানান। সেইসাথে ধর্ষণের এ মহোৎসব প্রতিরোধে সমাজের সচেতন নাগরিকদের সক্রিয় উদ্যোগের আহ্বান জানান।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *