ছাত্রী হলে সালওয়ারের ওপর গেঞ্জি পরিধান নিষিদ্ধ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

হলের অভ্যন্তরে সালোয়ারের উপর গেঞ্জি পরিধান করাকে অশালীন পোশাক হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষ। হল কর্তৃপক্ষের কারো স্বাক্ষরহীন জারি করা একটি নোটিশে লেখা হয়েছে, হলের অভ্যন্তরে ‘অশালীন পোশাক’ কখনোই পরিধান করা যাবে না। আর পরিধান করলে ‘কঠোর শাস্তি’ দেয়ারও ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ছবিসহ ওই নোটিশ নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয় বৃহস্পতিবার।

এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠার পরপরই হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা রহমান দাবি করেন, ওই নোটিশটি হল কর্তৃপক্ষের নয়।

সাংবাদিকদের প্রাধ্যক্ষ বলেন, বিকেলে অফিস সময়ের পরে এ নোটিশ টানানো হয়েছে। এটা হল কর্তৃপক্ষের নয়। আর এটাতে আমাদের কারও স্বাক্ষরও নেই। এ কাজ কে বা কারা করছে তা এখনও জানা যায়নি। হলটি ক্যাম্পাসের একেবারে বাইরের দিকে আর এটি কেউ অন্য কোন উদ্দেশ্যেও করতে পারে।

নোটিশ টানানোর দায়িত্বে থাকা হলের জ্যেষ্ঠ প্রশাসনিক কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, হলের যাবতীয় নোটিশ আমার মাধ্যমেই বোর্ডে যায়। এ নোটিশটি হল কর্তৃপক্ষের নয়। সাধারণত হলের নোটিশগুলো যে ফরমেটে করা হয় এটি সেরকম নয়। এটা কেউ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে টানাতে পারে।

এদিকে ওই ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে হল কর্তৃপক্ষ। প্রাধ্যক্ষ সাবিতা রেজওয়ানা রহমান স্বাক্ষরিত এক নোটিশে একথা জানানো হয়।

প্রসঙ্গত ২০১২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলের কাছে প্রায় সাত একর জায়গার ওপর এ হলের যাত্রা শুরু হয়। আবাসিক ছাত্রীরা হলে ঢোকেন ২০১৩ সালে। বর্তমানে হলের আবাসিক ছাত্রীসংখ্যা দুই হাজার এবং অনাবাসিক ছাত্রীসংখ্যা ৩ হাজার ৩০০। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হলটি উদ্বোধন করেছিলেন। আর নারীর ক্ষমতায়ন এবং নারীর সমতা প্রতিষ্ঠায় সারা জীবন কাজ করা কবি সুফিয়া কামালের নামে হলটির নামকরণ করা হয়েছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *