আদিবাসী মহিলাদের নির্যাতনঃ রণক্ষেত্র রায়গঞ্জ

চার আদিবাসী মহিলার উপর যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদ ঘিরে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল রায়গঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকা। গত শুক্রবার বিক্ষোভে সামিল হন আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষজন। তির ধনুক নিয়ে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। সেই বিক্ষোভ থেকে রণক্ষেত্র হয়ে যায় রায়গঞ্জ বাসস্ট্যান্ড চত্বর। দোকানপাটে ভাঙচুর করে আগুন লাগানো হয়।

অভিযোগ, রবিবার রায়গঞ্জ থানা থেকে ঢিলছোঁড়া দূরত্বে বাসস্ট্যান্ডের বিশ্রামাগার থেকে এক শিক্ষিকা সহ চার আদিবাসী মহিলাকে জোর করে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় ছাদের ঘরে। সেখানে আড়াই ঘণ্টা ধরে তাঁদের উপর নারকীয় অত্যাচার চালানো হয়। আরও অভিযোগ, ওই ঘটনার পর নিখোঁজ হয় দুই আদিবাসী নাবালিকা। মালদার গাজল থেকে পরে তাদের উদ্ধার করা হয়। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সামগ্রিক ঘটনার প্রতিবাদে গত শুক্রবার রায়গঞ্জে চণ্ডীতলা মোড় থেকে মিছিল শুরু করে আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষরা। রায়গঞ্জ পৌর বাসস্ট্যান্ডে কার্যত তাণ্ডব চালায়। কয়েক হাজার মানুষ তিরধনুক হাতে নিয়ে বিক্ষোভে সামিল হয়। বাসস্ট্যান্ড লাগোয়া এলাকায় রয়েছে INTTUC কার্যালয়। আগুন লাগানো হয় সেখানেও। কাছাকাছি থাকা বেশ কয়েকটি বাইক ও গাড়ি পুড়ে যায়। পুলিশের সামনেই চলে ভাঙচুর।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *