বান্দরবানে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

বান্দরবানের লামা ও আলীকদম উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। প্লাবিত হয়েছে নতুন নতুন আরও অনেক এলাকা। সোমবার (৩ জুলাই) রাতে ভারী বৃষ্টি হওয়ায় ডুবে গেছে লামা বাজারের ৩ শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ সহশ্রাধিক বাড়ী-ঘর ও অফিস-আদালত। টানা ৩ দিনের ভারী বর্ষণে ও পাহাড়ী ঢলে মাতামুহুরী নদীর পানি বিপদ সীমার ১০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সড়কের উপর পানি উঠে যাওয়ায় লামা-আলীকদমের সাথে জেলা সদরসহ সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

এদিকে ভারী বর্ষণ অব্যহত থাকায় পাহাড় ধসের আশংকায় শর্তকতা জারি করেছে বান্দরবান জেলা প্রশাসন। পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারীদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরে নিতে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
লামা পৌর সভার মেয়র জহিরুল ইসলাম জানান, গত ৩ দিনের ভারী বর্ষণে লামা উপজেলার অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পৌর এলাকার পুরো বাজার এখন ৫ ফুট পানির নীচে। এতে ৩ শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পানিতে তলিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একই সাথে উপজেলা অফিস, থানা ভবনসহ অধিকাংশ সরকারি-বেসরকারি অফিস আদালতও পানিতে তলিয়ে গেছে। উপজেলার প্রায় ৩০ হাজার মানুষ বন্যায় আক্রান্ত হয়েছে। ভারী বর্ষণ অব্যহত থাকায় ভয়াবহ বন্যার আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

এদিকে আলীকদম উপজেলার পাহাড়ী ঢলে নতুন আরও অনেক এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে সহশ্রাধিক মানুষ। মাতামুহুরী নদীর পানি বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এদিকে ব্যাপক পাহাড় ধসের কারণে রুমা-বান্দরবান সড়ক গত ২২ দিন ধরে বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ফলে রুমা উপজেলার শত শত মানুষকে নদী পথে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।
তথ্যসূত্রঃ দ্য রিপোর্ট

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *