কানাডা ডে’র প্রতিবাদে আদিবাসীদের বিক্ষোভ

কানাডার ১৫০তম জন্মদিন পালনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছিল ২০১০ সাল থেকে। উৎসব জাঁকজমক ভাবে পালন হলেও কানাডার আদিবাসীরা সদ্য সমাপ্ত এই উত্সবের প্রতিবাদ করে। বিরোধিতা করেন সিনেটর মুরে সিনক্লেয়ার, বিখ্যাত আর্টিস্ট এলেঙ জেনভিয়ার প্রমুখ। এই উৎসবের জন্য প্রায় তিনশ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করা হয়।

রাজধানী অটোয়ার পার্লামেন্ট হিলে গত কদিন ধরে চলে তাদের দাবি-দাওয়া, মিছিল, বিক্ষোভ, শ্লোগান। জাতিসংঘের আদিবাসী কর্মী এলসা হুওর প্রতিবাদে অংশ নেওয়ার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে একত্মতা প্রকাশ করেন। এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হলে আরসিএমপি নয়জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করে এবং পরে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দ্রুত তাদের মুক্তি দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো কানাডা দিবস পালনের আগে পার্লামেন্ট পার্কে বিক্ষোভকারীদের তাঁবুতে গিয়ে আদিবাসী কর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাত্ করেন। ট্রুডো তাঁবু থেকে বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন নি; কিন্তু পরবর্তীতে এ বিষয়ে টুইটারের একটি বার্তা পোস্ট করেন, তাদেরকে শ্রদ্ধা জানান। এদিকে হেরিটেজ মন্ত্রী মেলানি জোলি বলেন, সরকার শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করায় আদিবাসীদের অধিকারকে সম্মান করে।

উল্লেখ্য, দুইশ বছরের আদিবাসীদের এই দেশটিতে বর্তমানে বিশ্বের প্রায় সব দেশের মানুষ বসবাস করে। গত কদিন রাজধানী অটোয়ার পার্লামেন্ট হিলে আদিবাসীরা কানাডার ১৫০ বছর পূর্তি উত্সবের বিরোধিতা করে আসছে। বর্তমানে কানাডায় ১৪ লাখ আদিবাসী বসবাস করেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *