আদিবাসীদের পতাকা উড়ল অস্ট্রেলিয়ার সরকারি দপ্তরে

দেশের সবচেয়ে পুরনো সরকারি দপ্তরের পতাকা স্টান্ডে জাতীয় পতাকার পাশাপাশি আদিবাসীদের পতাকা উড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

অ্যাবরোজিনি হিসেবে পরিচিত অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের দেশের জনগণের অংশ হিসেবে গণ্য করার ৫০ বছর এবং আদালতের ঐতিহাসিক রায়ে আদিবাসীদের ভূমির অধিকারের স্বীকৃতির ২৫ বছর পূর্তিতে বুধবার ওই পতাকাটি উত্তোলন করা হয়।

দেশটির আদিবাসীদের এই পতাকাটি বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো সংস্কৃতির (যা এখনও বর্তমান) প্রতীক।

এই পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে ইউরোপীয় পূর্বপূরুষ থেকে উদ্ভূত অস্ট্রেলীয় জনগণের সঙ্গে স্থানীয় আদিবাসী ও টোরেস প্রণালীর দ্বীপবাসীদের দ্বন্দ্ব মিটমাটের পথে আরেক ধাপ অগ্রগতি হল বলে মনে করা হচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য নিউ সাউথ ওয়েলসের (এনএসডব্লিউ) রাজধানী ও দেশটির বৃহত্তম শহর সিডনির গর্ভনর হাউসে পতাকাটি উত্তোলন করা হয়। ১৭৮৮ সালে এখানেই ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের অস্ট্রেলীয় উপনিবেশের পত্তন হয়েছিল।

ঐতিহ্যবাহী ধোঁয়া ও পরিষ্কারকরণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পতাকা উত্তোলন করা হয়।

এ সময় নিউ সাউথ ওয়েলসের গভর্নর ডেভিড হারলি বলেন, “অ্যাবরোজিনাল ও টোরেস প্রণালীর দ্বীপের বাসিন্দারাই আমাদের দেশের প্রথম মানুষ। জনগণের অংশ বিবেচিত হওয়ার আগেই আপনারা অস্ট্রেলিয়ার পতাকার নিচে সমবেত হয়ে অস্ট্রেলীয়দের পাশাপাশি যুদ্ধ করেছেন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন।”

অস্ট্রেলিয়ার দুই কোটি ৪৫ লাখ জনসংখ্যার দুই দশমিক আট শতাংশ অ্যাবরোজিনি ও টোরেস প্রাণালীর দ্বীপগুলোর বাসিন্দা। গত শতকের ৬০ দশকের মাঝামাঝি পর্যন্ত এসব জনগোষ্ঠীর কোনো ভোটাধিকার ছিল না।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *