গুগলের ২৭০ কোটি ডলার জরিমানা

ক্ষমতার অপব্যবহারের দায়ে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন ও ইন্টারনেট কোম্পানি গুগলকে জরিমানা গুনতে হচ্ছে। গুগলকে ২৭০ কোটি ডলার জরিমানা করেছে ইউরোপিয়ান কমিশন (ইসি)। এর আগে এরকম কোনো অভিযোগে কোনো প্রতিষ্ঠান এতো বড় অংকের জরিমানার শিকার হয়নি।

ইন্টারনেটে কোনো কিছু অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগলের যে প্রাধান্য, তার সুযোগ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে গুগলের বিরুদ্ধে। মানুষজন ইন্টারনেটে কোনো জিনিস কিনতে গেলেই, গুগল নিজেদের একটি শপিং সার্ভিসের পছন্দমতো তৈরি করা তালিকা সবার আগে তুলে ধরছে।

গুগল শপিং নামে একটি সেবা ব্যবহার করে এমটি করছিল তারা। ইন্টারনেটে যে কোনো পণ্য খুঁজলেই গুগল শপিং সেইসব জিনিসের ছবি, দাম, কোন দোকানে তা পাওয়া যায়, ক্রেতারা কোনটাকে সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন তার তুলনামূলক স্কোর তুলে ধরে।

কারও অনুসন্ধানের এই ফলাফলটা ঠিক স্বাভাবিক নয়। পাশেই লেখা থাকে `স্পনসরড`। `স্ক্রল` করে তালিকার নিচের দিকে না গেলে অন্য কোম্পানির তৈরি একই জিনিস দেখতেই পাওয়া যায় না। তাছাড়া গুগল শপিং এর বিজ্ঞাপনগুলোতে থাকে পণ্যের দাম ও ছবি। কিন্তু অন্যদের পণ্যের বিজ্ঞাপনে তা থাকে না।

গুগল শপিং এর কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে ইসি তদন্ত করছে গত ৭ বছর ধরে। মাইক্রোসফটসহ অন্য কিছু কোম্পানির অভিযোগের পর ওই তদন্ত শুরু হয়েছিল।
ইসি`র রুলিং-এ বলা হয়েছে, গুগল যেভাবে অন্যদের প্রতিযোগিতা করার সুযোগ কেড়ে নিচ্ছে, তা ৯০ দিনের মধ্যে বন্ধ করতে হবে।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের কম্পিটিশন কমিশনার মার্গারেট ভেস্টাজার বলেন, গুগল যা করছে তা ইইউ আইনের লঙ্ঘন। এর ফলে অন্য কোম্পানিকে তাদের গুণাগুণ এবং সৃষ্টিশীলতা দিয়ে প্রতিযোগিতা করার সুযোগ কেড়ে নেয়া হচ্ছে এবং ইউরোপের ভোক্তাদের প্রতিযোগিতার সুফল থেকে বঞ্চিত করছে।

গুগল এই নির্দেশনা না মানলে তাদেরকে আরেক দফা জরিমানা করা হবে। তবে গুগল আভাস দিয়েছে, তারা এর বিরুদ্ধে আপিল করতে পারে।

তথ্যসূত্রঃ বিবিসি

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *