কক্সবাজারে রাখাইন স্কুল শিক্ষিকা পরিবারের নিরাপত্তা চান

কক্সবাজারে এক রাখাইন পরিবার সন্ত্রাসীদের হামলার ভয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। গত ১১ জুন বিকেলে ঐ পরিবারের মালিকানাধীন দোকানের একটি অংশ সন্ত্রাসীরা দখল করে নিয়েছে। এখন চেষ্টা করছে বসতবাড়ি দখল করা জন্য।
বসতবাড়ি ছেড়ে অন্য জায়গায় চলে না গেলে সন্ত্রাসীরা ঐ পরিবারকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি এমনকি হত্যাও করতে পারে। এই আশঙ্কা করছেন কক্সবাজার কেজি এন্ড মডেল হাই স্কুলের শিক্ষিকা মা উন টিন।
গত ১৭ জুন বিকেলে কক্সবাজারের এক হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই আশংকার কথা বলেন।
এ ব্যাপারে গত ১৬ জুন শহরের বইল্যাপাড়া এলাকার আব্দুল জব্বার মুন্সির তিন পুত্র আব্দুল রাশেদ, আব্দুল ওয়াজেদ খোকা ও আব্দুল ওয়াশিম অভিসহ ১০/১২ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের (নং- ৮৫/’১৭) করা হয়েছে।
সম্মেলনে স্কুল শিক্ষিকা মা উন টিন বলেন, আমার স্বামী চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের প্রশিক্ষক হিসেবে কর্মরত। দীর্ঘ ২৫ বছর যাবত দু’কন্যাসহ আমি শহরের চাউলবাজার সড়োকে আমার শ্বশুর বাড়িতে বসবাস করছি। কয়েক বছর আগে আমার শ্বাশুড়ি মায়ানমারে চলে যেতে চান।
বিষয়টি বুঝতে পেরে আমরা কক্সবাজার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করি(১২৫/’১৫)। যাতে আমার শ্বাশুড়ি আমাদের বসতবাড়ি বিক্রি করতে না পারেন।
ঐ মামলা চলাকালীন সময়েই জমিটি জৈনক আব্দুল ওয়াহেদ গংদের কাছে আমাদের বসতবাড়ি বিক্রি হয়েছে বলে জানতে পারি। এরপর থেকে আমার কর্মস্থলে যাওয়া আসার সময় এমনকি বিভিন্ন সময় পথে ঘাটে আব্দুল ওয়াহেদ আমাকে বসতবাড়ি ছেড়ে দিতে নানাভাবে লাঞ্ছিত করতে থাকে। আমি আদিবাসী নারী হওয়ায় দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে সে মিথ্যা মামলায় জড়ানোসহ নানারকম হুমকি দিতে থাকে। সর্বশেষ চলতি বছরের (২০১৭) ১১ জুন জোরপুর্বক আমাদের মালিকানাধীন একটি দোকানের তালা ভেঙ্গে দোকানের দখল নিয়ে নেয়। এরপর থেকে আমরা আরো অসহায় হয়ে পরি।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *