মাটিরাঙ্গায় আদিবাসী নারীকে গলাকেটে হত্যা

মাটিরাঙ্গায় এক অাদিবাসী নারীকে জবাই করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। নিহত মহিলার নাম মহিনী ত্রিপুরা (৩৩) ।
পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনী এসে তার গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে । জানা যায়, নিহত মহিনী ত্রিপুরা মাটিরাঙ্গা উপজেলার দলদলি পাড়ার সুমন ত্রিপুরার স্ত্রী ও তিন সন্তানের জননী।
সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার বাইল্যাছড়ি মৌজার পাহাড়ের নিচে তার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ ভোরে প্রতিদিনের ন্যায় বাড়ির পাশে পাহাড়ের নিচে প্রাকৃতিক কুয়া থেকে পানি আনতে ও গোসল করতে গেলে সন্ত্রাসীরা মহিনী ত্রিপুরাকে গলা কেটে পালিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরে তার বড় ছেলে সুজন ত্রিপুরা (১২) মায়ের কাপড় নিয়ে গেলে কুয়ার পাশে মায়ের গলাকাটা লাশ দেখতে পায়।
তার চিৎকারে গ্রামবাসী দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পরে নিরাপত্তাবাহিনী ও পুলিশকে খবর দিলে সকাল ৮টা দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে মহিনী ত্রিপুরার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে।
এদিকে সন্দেহজনকভাবে স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এটা শুধু আজকের ঘটনা না নিকট অতীত থেকে খাগড়াছড়ি দুর্গম এলাকায় প্রায়ই সময় আদিবাসী নারীরা এইরকম হত্যাকান্ড,লাঞ্ছনা ও অপহরণের শিকার হয়ে আসছে। কোন কোন সময় ধর্ষণের পর নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে । এই রকম হত্যাকান্ড সুপরিকল্পিতভাবে অহরহ করা হচ্ছে । এসময় তারা প্রকৃত হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামীদের বের করে শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *