বান্দরবানে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী আদিবাসী নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ:

আইপিনিউজ, বান্দবান প্রতিনিধি: বান্দরবানের লেমুঝিরি মুখ পাড়ায় এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণকারী ৭নং ওয়ার্ড বান্দরবান সদর ইউনিয়নে লেমুঝিড়ি মূখ পাড়ার আমান চৌধুরীর ছেলে মোঃ ফরহাদ চৌধুরী (৩০) ।অভিযুক্ত ব্যক্তি বান্দরবান টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র।
উল্লেখ্য, ১৪মে (শনিবার) দুপুরে বান্দরবান সদর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড লেমুঝিরি মূখ পাড়ায় উক্ত আদিবাসী নারীকে ধর্ষণ করা হয়।

এই বিষয়ে ধর্ষণের শিকার নারীর স্বামী’র সাথে কথা বলে তিনি আইপিনিউজকে জানান, আমি একজন সাধারণ দিনমজুর। আমার স্ত্রী একজন বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নারী। আমার ছোট্ট একটি বাচ্চা আছে। আমি কাজ করার জন্য রোয়াংছড়িতে গিয়েছিলাম। যাবার সময় বলেছিলাম তোমার যদি কোন চালডাল জিনিসপত্র প্রয়োজন হলে তুমি বাইরে কোথাও যাবে না। কারণ সে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী।

ধর্ষণের শিকার নারীর স্বামী আরো বলেন, আমি যখন কাজে চলে যায় তখন আগে থেকে ফাঁদ পেতে থাকা বখাটে ছেলে ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরী আমার স্ত্রীর ঘরের মধ্যে ঢুকে তাকে জোর জোরপূ্র্বক ধর্ষণ করে । আমি পরে কাজ থেকে আসলে আমার আত্মীয় স্বজনরা আমাকে ধর্ষণের কথা জানায়।

এবিষয়ে আজ ১৬মে (সোমবার) দুপুরে বান্দরবান সদর থানায় অভিযুক্ত ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরী”র বিরুদ্ধে ভিকটিম এর স্বামী বান্দরবান সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এছাড়াও ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরীর বিরুদ্ধে এলাকায় নানা অপরাধের অভিযোগ রয়েছে বলে জানা যায়। গত ২রা এপ্রিল লিমুঝিরি মুখ পাড়ার বাসিন্দা থোয়াই চিং মং মারমা নামের এক ব্যক্তি’কে অহেতুক কথা তর্কে তাকে মেরে বাম হাত ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। তার হামলায় পৃথকভাবে আরো তিন জন আহত হয়েছে তারা হলেন, আবসার , শুক্কুর ও এক গ্রাম পুলিশ(নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক)।

এব্যাপারে অভিযুক্ত ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন তিনি বান্দরবান সরকারী টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র। এছাড়া নিজেকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বান্দরবান সদর ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি হিসেবে পরিচয় দিয়ে নির্দোষ দাবী করেন এবং তিনি ষড়যন্ত্রের স্বীকার বলে জানান।

৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ মনছুর আলম বলেন, সদর থানা থেকে পুলিশ এলাকায় তদন্তে এসেছে। অভিযুক্ত ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরীকে এলাকায় পাওয়া যাচ্ছেনা বলে জানান তিনি।
বান্দরবান সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অংসাহ্লা মার্মাকে ধর্ষনের ঘটনার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি অবগত নন বলে জানান।
এদিকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি কাউছার সোহাগ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন অভিযুক্ত ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরী ছাত্রলীগের কোন কমিটিতে নেই। সে ছাত্রলীগের কেউ না।

এ বিষয়ে বান্দরবান সদর থানায় যোগাযোগ করা হলে ডিউটিরত পুলিশ কর্মকর্তা এসআই জমির জানান , তারা আমাদেরকে একটি অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার সত্যতা যাচাই করা হবে এবং ঘটনার আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে জানান তিনি।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.