খুলনা-নারায়ণগঞ্জ-সান্তাহারে সিপিবির কর্মসূচিতে পুলিশ ও সরকারি দলের হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি কমরেড মোহাম্মদ শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড রুহিন হোসেন প্রিন্স এক বিবৃতিতে আজ ১৫ মার্চ খুলনায় সিপিবি অফিস পুলিস কর্তৃক অবরুদ্ধ করে কর্মসূচি পালনে বাধা, শ্রমিকলীগ, যুবলীগ এবং আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের নারায়ণঞ্জের রূপগঞ্জে সিপিবির পথসভার ব্যানার, মাইক ছিনিয়ে নেয়া, বগুড়ার সান্তাহারে সমাবেশ করতে না দেয়া, পুলিশ যুবলীগ, ছাত্র লীগের সন্ত্রাসীদের মাইক ভাঙচুর,ব্যানার ছিঁড়ে ফেলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হামলাকারীদের চিহ্নিত ও শাস্তির দাবি করেছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে হামলা-নির্যাতন জোরদার করছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে সিপিবির ওপর একের পর এক হামলা হচ্ছে। এর আগে গত ১৩ মার্চ ২০২২ বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার গোমা বাজারে সাপ্তাহিক হাটে হাটসভা চলাকালে আওয়ামী দুস্কৃতিকারীরা এসে মাইক কেড়ে নেয় ও সভা বন্ধ করার জন্য জবরদস্তি করে এবং হুমকি দেয়।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, হামলা-নির্যাতন করে সিপিবি কে রাজপথ থেকে সরানো যাবে না। গণবিরোধী সরকারের বিরুদ্ধে সিপিবি তার লড়াই অব্যাহত রাখবে। গণ-আন্দোলনের মাধ্যমেই সব হামলার জবাব দেয়া হবে। সিপিবি আওয়ামী স্বৈরাশাসনের বিরুদ্ধে জনগণের ঐক্য গড়ে তুলবে ও বাম জোট আহুত আগামী ২৮ মার্চ হরতাল কর্মসূচি সফল করতে সব ধরনের সংগ্রাম চালিয়ে যাবে।
উল্লেখ্য, তেল, চাল, ডাল, চিনি, সিলিন্ডার গ্যাসসহ নিত্য পণ্যের লাগামহীন মূল্য বৃদ্ধি ও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারের ব্যর্থতার প্রতিবাদে সিপিবির উদ্যোগে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি চলছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.