ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে দুই গারো তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় আসামী গ্রেফতার

কাঞ্চন মারাক, হালুয়াঘাট: ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে দুই আদিবাসী স্কুল ছাত্রী গণধর্ষনের প্রধান আসামি সোলাইমান হোসেন রিয়াদ(২২) ও তার সহযোগী ৫ জন আসামী গ্রেফতার হয়েছে। ৭ জানুয়ারি রাতে পৃথক অভিযানে র্যাব-১৪ ধর্ষনের মূল হোতা রিয়াদ২২) এবং সহযোগী ৫ জন আসামীকে ময়মনসিংহ গোয়েন্দা পুলিশ ( ডিবি) গ্রেফতার করে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ ডিসেম্বর হালুয়াঘাটের ডুমনিকুড়া গ্রামের আদিবাসী দুই স্কুল ছাত্রী পাশের গ্রামের বিয়ের অনুষ্ঠান শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় প্রাক্তন ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নানের ছেলে সোলাইমান হোসেন রিয়াদ(২২) ও তার বন্ধুরা পথরোধ করে এবং গণধর্ষন করে ফেলে রেখে যায়। এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। তারপর ৩০ তারিখ ধর্ষিতার বাবা বাদি হয়ে হালুয়াঘাট থানায় ধর্ষক রিয়াদসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং বাগাছাসের উদ্যোগে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়। পরে শুক্রবার রাতে হালুয়াঘাট এলাকা থেকে ধর্ষক রিয়াদকে আটক করে র‌্যাব

বিষয়টি র‌্যাব-১৪ ‘র অধিনায়ক উইং কমান্ডার মো: রুকনুজ্জামান নিশ্চিত করেছেন। অন্যদিকে গাজীপুর ও ময়মনসিংহের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরোও ৫ জন এজাহারভুক্ত আসামীকে গ্রেফতার করেছে ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশ।গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন, শরিফ মিয়া(২০), মিজান মিয়া(২২), মিয়া হোসেন (১৯), রুকন মিয়া(২১) এবং তদন্তে সম্পৃক্ততা পাওয়ায় আব্দুল হামিদকে (২২) গ্রেফতার করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: সফিকুল ইসলাম বলেন, “দুই গারো আদিবাসী সংঘবদ্ধ ধর্ষনের অভিযোগে ৫জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হবে এবং বাকি আসামীকে দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছি।”

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *