রাজধানীর কল্যাণপুরে রাস্তায় আদিবাসী যুবকের লাশ

গত ২৬ শে এপ্রিল রাজধানীর কল্যাণপুরে রাস্তা থেকে হেরিসন ত্রিপুরা নামের এক আদিবাসী যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঢাকায় তিনি থাকতেন মোহাম্মদপুর এলাকায়; সেখানে মকবুল হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স পড়ছিলেন তিনি। ড্যাশিং ত্রিপুরা হ্যারিসন নামের ২২ বছর বয়সী ওই যুবকের বাড়ি খাগড়াছড়ির দীঘিনালায়। মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে একটি ভবনের পাশে রাস্তায় হ্যারিসনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।
দারুস সালাম থানার এসআই মোহাম্মদ রায়হানুজ্জামান জানান, “ওই যুবকের বাঁ চোয়াল ভাঙা ছিল; নাক দিয়ে রক্ত ঝরার চিহ্ন পাওয়া গেছে।”
হ্যারিসনের বড় ভাই সাইক্লোনিক ত্রিপুরা বলেন, মঙ্গলবার রাত সোয়া ৯টার দিকে সবুজ ফোনে তাকে বলেন, হ্যারিসন ‘অসুস্থ’।
এ খবর পেয়ে সাইক্লোনিক কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে গেলে সবুজ ও গোপাল নামে
দুজন তাকে পশ্চিম কল্যাণপুরে নিয়ে যায়।
“সেখানে গিয়ে ৩/ডি নম্বর বাসার সামনের রাস্তায় হ্যারিসনকে মৃত অবস্থায় পাই।”
তিনি আরও বলেন, দুই দিন আগে মোহাম্মদপুর বাবর রোডের বাসা থেকে তার ভাই কল্যাণপুরে বন্ধু জাহিদুল ইসলাম সবুজের বাসায় বেড়াতে আসে। “হ্যারিসন মাঝেমধ্যেই সবুজের বাসায় এসে থাকতো। সবুজের বাড়িও দীঘিনালায়। তারা স্কুল জীবনের বন্ধু।”

এর কিছুক্ষণের মধ্যে সেখানে পুলিশ যায় এবং সবুজ ও তার সঙ্গে একই মেসে থাকা মোট সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায়।

এসআই রায়হানুজ্জামান বলেন, যেখানে হ্যারিসনের লাশ পড়েছিল, তার পাশে একটি
ছয়তলা ভবনের চারতলায় সবুজরা মেস করে থাকেন।
ওই মেসের বাসিন্দাদের থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এ ঘটনায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে দারুস সালাম থানায় একটি মামলা করেছেন বলে জানান সাইক্লোনিক ত্রিপুরা।

ছবিঃ সংগৃহীত

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *