গুচ্ছ প্রকৌশলে আদিবাসী কোটার ফলাফলে অ-আদিবাসী অন্তর্ভুক্তিতে পিসিপি’র ক্ষোভ

সম্প্রতি প্রকাশিত হওয়া চুয়েট, কুয়েট এবং রুয়েট এর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় আদিবাসী কোটায় প্রকাশিত মেধা তালিকায় অ-আদিবাসী (বাঙালি) ৮ জন শিক্ষার্থীর নাম অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

অসংগতিপূর্ণ এই তালিকা প্রকাশ করায় এ বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ। আজ রবিবার, সংগঠনটির কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক রেং ইয়ং ম্রো স্বাক্ষরিত একটি বিবৃতিরে মাধ্যমে এই ক্ষোভ ও উদ্বেগ জানায়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে প্রকাশিত হওয়া চুয়েট, কুয়েট এবং রুয়েট এর সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা, ডেন্টাল কলেজের বিডিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিবাসী কোটায় প্রকাশিত মেধা তালিকায় অনেক অ-আদিবাসী (বাঙালি) শিক্ষার্থীদের নাম অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে এ ধরণের ঘটনা উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে যা পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন ও সংবিধান পরিপন্থী।

বিবৃতিতে সংগঠনটি দাবী করছে যে, প্রকাশিত অ-আদিবাসী (বাঙালি) শিক্ষার্থীদের নামসমূহ হলো– PRATIMA DEY EMU (50956), MD. NAJMUS SAKIB (56279), MD. ASHRAFUL KABIR ARIF (62518), RONY SARKER (66073), MD. AL GALIB (70739), SABIQUNE NAHAR NITI (76478), MD. RAFAYEL SHIUM (76989), MD. JAHID ALAM NOMAN (75689)। এছাড়াও ডেন্টাল কলেজের বিডিএস কোর্সের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে আদিবাসী কোটার জন্য বরাদ্দকৃত আসনে আবু মো. মোস্তফা কামাল (রোল-৫৬০৩৭৫০), স্যার সলিমুল্ল্যাহ মেডিকেল কলেজ (ডেন্টাল ইউনিট) এবং আনজুম ফারিয়া (রোল- ৫৪০৬৮৪২), সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ (ডেন্টাল ইউনিট) অ-আদিবাসী (বাঙালি) শিক্ষার্থীদের নাম প্রকাশ করা হয় এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েও ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষার আদিবাসী কোটায় ZAYED RAHMAN (43226), ABDUL MAZID (30393), FAHMID HASAN (53551), A.S.M. MUSHFIQUR RFAHMAN (72208), এই চারজন অ-আদিবাসী (বাঙালি) শিক্ষার্থীদের নাম অর্ন্তভূক্ত করে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। বিভিন্ন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আদিবাসী কোটায় এরকম অসংগতি ও অনিয়ম বিভিন্ন সময়ে শোনা গেলেও সাম্প্রতিক সময়ে তা উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে বলেও মনে করে সংগঠনটি।

এছাড়াও প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকুরিতে ৫% কোটা ব্যবস্থার পুর্নবহাল এবং উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহে ৫% আদিবাসী কোটার যথাযথ বাস্তবায়নসহ আদিবাসী শিক্ষার্থীদের জন্য বরাদ্ধকৃত আসনে অ-আদিবাসী শিক্ষার্থীদের নাম বাতিল করা এবং ভবিষ্যতে এরকম অসংগতিপূর্ণ ফলাফল প্রকাশ না করে নিয়মানুযায়ী আদিবাসী কোটায় শুধুমাত্র আদিবাসী শিক্ষার্থীদের নাম প্রকাশ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ দাবি জানিয়েছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *