শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় ঢাবি’তে এম.এন লারমারমাকে স্মরণ

সুমেধ চাকমাঃ জুম্ম জাতির জাতীয় অগ্রদূত, চিরবিপ্লবী মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে প্রয়াত নেতার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করছে পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া জুম্ম শিক্ষার্থীবৃন্দ।

আজ বুধবার সকালে ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ’, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে নির্মিত অস্থায়ী স্মৃতিবেদীতে একটি সংক্ষিপ্ত স্মরণসভারও আয়োজন করা হয়।আলোচনার আগে প্রয়াত নেতা’র প্রতি পুষ্ফমাল্য অর্পন করেন জুম্ম শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং পিসিপি’র নেতৃবৃন্দ।

উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি লিটন চাকমা এবং সঞ্চালক হিসেবে ছিলেন জুম্ম শিক্ষার্থী পরিবারের সদস্য অনন্ত তঞ্চঙ্গ্যা।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষার্থী সতেজ চাকমা বলেন, “আজ আমরা এমন একজন উঁচু মাপের নেতাকে স্মরণ করতে যাচ্ছি যিনি সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের পথচলার নির্দেশনা দিয়ে গেছেন তাঁর সংসদীয় বিতর্কে রাখা বক্তব্যের মধ্যে। তাঁর নির্দেশনা এবং কল্পিত রাষ্ট্রব্যবস্থায় সবার সমান অধিকারের নিশ্চয়তা ছিল। যার জন্য ভবঘুরে, যৌনপল্লির পতিতা নারী, বেদে থেকে শুরু করে সব প্রান্তিক জনমানুষের জীবন বদলের কথা তিনি বলে গেছেন। তাঁর চিন্তা এবং দর্শন আমাদের কাছে পাথেয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
সভায় উপস্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক জিকো চাকমা বলেন, “বিগত ২৪ বছরেও পার্বত্য সমস্যার রাজনৈতিক সমাধান হওয়া তো দূরের কথা, বরং সমস্যা আরো জটিল থেকে জটিলতর হয়ে উঠেছে। বর্তমানে পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক পরিস্থিতি খুবই নাজুক। এই পরিস্থিতিতে ছাত্র সমাজকে একতাবদ্ধ হতে হবে। মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার চেতনায় বিশ্বাসী হয়ে আমাদের কাজ করতে হবে, তা না হলে আমাদের অস্তিত্ব এ দেশে থাকবে না”।

সভাপতির বক্তব্যে পিসিপি’র ঢাবি শাখার সহ-সভাপতি লিটন চাকমা বলেন, “মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা তার আদর্শের জন্য আমাদের মাঝে অমর হয়ে আছেন। গণ পরিষদ বিতর্ক চলাকালে তিনি যে বক্তব্য রেখেছিলেন সেই কথাগুলো বর্তমান সময়েও প্রাসঙ্গিকতা হারায়নি। জুম্ম জনগণের আত্মনিয়ন্ত্রণ অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হলে তার নির্দেশিত পথে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে, কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সংগ্রামকে আরো বেগবান করতে হবে”।

সভায় মানবেন্দ্র নারায়ন লারমা সহ এ দিনে শহীদ অন্য নেতাদের স্মরণে উক্ত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ঢাবি’র সিনিয়র শিক্ষার্থী নবাংশু চাকমা, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সুমেধ চাকমা, দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শান্তিময় চাকমা, ডনোয়াই ম্রো প্রমুখ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *