লামায় আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসী কর্তৃক জনসংহতি সমিতি ও পিসিপি সদস্যদের উপর হামলা

গত ২৫ এপ্রিল ২০১৬ বেলা ১:০০ টার দিকে বান্দরবান জেলার লামা উপজেলাধীন গজালিয়া বাজারে আওয়ামী লীগের লেলিয়ে দেয়া ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা জনসংহতি সমিতি ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সদস্য এবং গজালিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী চচিংমং মারমার পোলিং এজেন্টের উপর হামলা করে। এতে জনসংহতি সমিতির একজন ও পিসিপির দুইজন মোট তিনজন সদস্য গুরুতরভাবে আহত হয়।
জানা যায় যে, গত ২৩ এপ্রিল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন চলাকালে আওয়ামী লীগের কর্মী ও সমর্থকরা নকল ব্যালট পেপার দিয়ে জাল ভোট দিতে চাইলে জনসংহতি সমিতি ও পিসিপি সদস্যরা- যারা গজালিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী চচিংমং মারমার পোলিং এজেন্ট ও নির্বাচনী কর্মী হিসেবে কাজ করেছিলেন- তারা বাধা দেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিশোধ হিসেবে গত ২৫ এপ্রিল আওয়ামী লীগের ৫০/৬০ জনের একদল সন্ত্রাসী পরিকল্পিতভাবে জনসংহতি সমিতি ও পিসিপি সদস্যদের যাদেরকে গজালিয়া বাজারে পেয়েছে তাদের উপর লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ করে। এতে মংনুচিং মারমা (৩৫), জ্যোতিহা ত্রিপুরা (২২) ও সুইথোয়াইচিং মারমা (২১) নামের তিনজন আহত হয়েছে।
এ হামলায় ছাত্রলীগের গজালিয়া ইউনিয়ন শাখার সভাপতি চিংহাইমং মারমা (২৫) এবং সাধারণ সম্পাদক উসাইনসুই মারমার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা হামলা করে। এ হামলার পর গজালিয়া ক্যাম্পের কম্যান্ডার হামলাকারী আওয়ামীলীগের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যাবস্থা না নিয়ে বরঞ্চ ‘পিসিপির সদস্যরা বেশি উচ্ছৃঙ্খল’ মর্মে অভিযোগ তুলে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে বলে জানা গেছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *