গরিব মেহনতি রিকশা শ্রমিকদের রুটি-রুজি বন্ধের চক্রান্ত রুখে দাঁড়াও

ব্যাটারি রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাতিল, বুয়েট প্রস্তাবিত রিকশাবডি, স্পিড নিয়ন্ত্রক উন্নত ব্রেকসহ ব্যাটারি রিকশা চলতে দেয়ার দাবিতে রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন আজ সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে।

সংগঠনের সভাপতি শাহাদাৎ খাঁ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশ সঞ্চালনা করেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম নাদিম। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সম্পাদক কমরেড জলি তালুকদার, বিপ্লবী সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের দপ্তর সম্পাদক শ্রমিকনেতা হযরত আলী, টিইউসি ঢাকা মহানগর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আক্তার হোসেন, ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রাগীব নাঈম, বস্তিবাসী ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. নুরুজ্জামান। আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের অন্যতম নেতা মকবুল হোসেন, আব্দুল হাকিম মাইজভান্ডারী, দেলোয়ার হোসেন, মো. হাসেম, সুমন মৃধা প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ভোট কারচুপির মাধ্যমে আজ যে সরকার ক্ষমতায় তার নিজেরই বৈধতা নাই। এই অবৈধ সরকারের ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্তও অবৈধ এবং অবিলম্বে এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে।

কমরেড জলি তালুকদার বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী প্রায় অধিকাংশই গরিব মেহনতি মানুষ। আর বর্তমান সরকার সেই গরিব মেহনতি মানুষের রুটি-রুজি বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে বেইমানি করছে। তাই গরিব মেহনতি মানুষের সরকার প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে এদেশের মেহনতি মানুষের প্রকৃত মুক্তি নিশ্চিত করার লড়াইকে বেগবান করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে শ্রমিকনেতা শাহাদাৎ খাঁ বলেন, রুটি-রুজি বন্ধের সরকার, আর নাই দরকার। গরিবের বাহন ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়ে বলেন, ব্যাটারি রিকশা আধুনিক করে শ্রমিকদের লাইসেন্স দাও এবং বাঁচার মতো বাঁচতে দাও।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *