টাঙ্গাইলে গণমাধ্যমকর্মী এডওয়ার্ড মাংসাং এর মুক্তি চায় এলাকাবাসী

টাঙ্গাইল জেলাধীন মধুপুর উপজেলার ৯নং অরণখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রহিম ও তাঁর গং বাহিনী কর্তৃক গণমাধ্যমকর্মী প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং কে গাছে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন ও চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন, মিথ্যা মামলা প্রদানসহ জেল হাজতে প্রেরণ ও প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং এর নিঃশর্ত মুক্তিসহ নির্যাতনকারী চেয়ারম্যান ও গং বাহিনীর বিচারের দাবিতে গতকাল (২৪ আগষ্ট) মধুপুরের জলছত্র ২৫ মাইল বাজারে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশ থেকে টাঙ্গাইল জেলা পরিষদ বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করা হয়েছে।

টাঙ্গাইল জেলাধীন মধুপুর উপজেলার অন্তর্গত ৯নং অরণখোলা ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় অধিবাসীদের পক্ষ থেকে দেয়া উক্ত স্মারকলিপিতে বলা হয় যে, ঐতিহাসিক মধুপুর গড়াঞ্চলে স্মরণাতীত কাল থেকেই গারো, কোচ/বর্মণ জাতিসত্বা ও বাঙালির সম্প্রীতির বসবাস। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় যে, গত ১৮ আগষ্ট, ২০২১ইং তারিখ সময় আনুমানিক বিকাল ৩ ঘটিকায়, টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার বেরীবাইদ ইউনিয়নের জাঙ্গালিয়া গ্রামের বাসিন্দা ও গণমাধ্যমকর্মী প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং কে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানুষিক নির্যাতন করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রহিম ও তাঁর গং বাহিনীরা। বেশ কিছুদিন আগে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রহিমের দুর্নীতি ও বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে এস্বাবি নিউজ নামে একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রতিবেদন সংবাদ প্রকাশ করে নিউজ পোর্টালের মধুপুর উপজেলার প্রতিনিধি প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং। ১৮ আগষ্ট, ঘটনার দিন জলছত্র এলাকার হাওদা বিল এলাকায় দু’জন শিশু নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় গণমাধ্যমকর্মী প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং সংবাদ সংগ্রহের জন্য গেলে চেয়ারম্যান ও তাঁর গং অনুসারীরা তাকে আটকে রেখে গাছে বেঁধে তাঁর ওপর অমানুষিক বর্বর কায়দায় নির্যাতন করা হয়। পরবর্তীতে স্থানীয় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় মধুপুর থানার পুলিশ অমানুষিক নির্যাতনের শিকার প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং কে উদ্ধার করলেও হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ না করে উপরন্তু চেয়ারম্যান তাঁর ক্ষমতা অপব্যবহার করে মধুপুর থানায় মিথ্যা মামলা প্রদান করে জেল-হাজতে প্রেরণের সুপারিশ করেন। আব্দুর রহিম একজন জনপ্রতিনিধি হয়েও দেশের বিদ্যমান আইন, বিচার ব্যবস্থার তোয়াক্কা না করে মধ্যযুগীয় বর্বর কায়দায় একজন গণমাধ্যমকর্মীর ওপর নির্যাতন করেছে। আব্দুর রহিম ও তাঁর গং বাহিনীর এহেন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও নির্যাতনের জন্য ইউপি চেয়ারমযান পদ থেকে তার দ্রুত অপসারণ ও দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।

এছাড়া স্মারকলিপিতে চেয়ারম্যানকে ‘গুন্ডা প্রকৃতির অমানুষ’ উল্লেখ করে ভবিষ্যতে এমন প্রকৃতির কেউ যেন জনপ্রতিনিধি পদে নির্বাচন করতে না পারেন তার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য জোর দাবিও জানানো হয়।

এদিকে উক্ত সমাবেশ থেকে একজন গণমাধ্যমকর্মীর ওপর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রহিম ও তাঁর গং বাহিনীর এহেন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, চরম মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে নিরপেক্ষ তদন্তসহ বিচার, নির্যাতনের শিকার গণমাধ্যমকর্মী প্রিন্স এডওয়ার্ড মাংসাং এর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবিও জানানো হয়।

আবিমা গারো ইয়ুথ এসোশিয়েশনের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক মিঠুন হাগিদকের সভাপতিত্বে সংগঠনটির মহাসচির শ্যামল মানকিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে বাগাছাসের কেন্দ্রয় সভাপতি লিংকন ডিব্রা, সাবেক ছাত্র নেতা বিজয় হাজং, সানি মারাক সহ অনেকেই বক্তব্য রাখেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *