শহীদ আলফ্রেড সরেন এর সমাধিস্থলে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের শ্রদ্ধাঞ্জলি ও বিচার দাবি

সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী : আজ ১৮ই আগস্ট বুধবার সকাল ১১টায় নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুরে গ্রামে জাতীয় আদিবাসী পরিষদ এর আয়োজনে শহীদ আলফ্রেড সরেন এর সমাধিস্থলে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করা হয়।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদ মহাদেবপুর উপজেলা শাখা সভাপতি দিলীপ পাহান এর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক সবিন চন্দ্র মুন্ডা, কোষাধ্যক্ষ সুধীর তির্কী, রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নরেন চন্দ্র পাহান, কেন্দ্রীয় সদস্য বিভূতিভূষণ মাহাতো। জাতীয় আদিবাসী পরিষদ নওগাঁ জেলা শাখা উপদেষ্টা এ্যডঃ শহীদ হোসেন সিদ্দিকী, উপদেষ্টা মহাদেবপুর উপজেলা শাখা আজাদুল ইসলাম আজাদ। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ পোরশা উপজেলা শাখা সাবেক সভাপতি মহেন্দ্র পাহান, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আইচন পাহান, নিয়ামতপুর উপজেলা শাখা সাধারন সম্পাদক অজিত মুন্ডা, আদিবাসী যুব পরিষদ পত্নীতলা উপজেলা শাখা আহ্বায়ক পরেশ টুডু, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান, সহ সভাপতি যাকব এক্কা, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক দিলীপ পাহান, পত্নীতলা উপজেলা শাখা সভাপতি সুজিত পাহান, মহাদেবপুর উপজেলা শাখার সভাপতি চঞ্চল পাহান, সাধারণ সম্পাদক সুজিত উড়াও,সাংগঠনিক সম্পাদক পলাশ পাহান ফুল সহ জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, আদিবাসী যুব পরিষদ, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ বিভিন্ন উপজেলা, ইউনিয়ন কমিটির সদস্যবৃন্দ। পরিবারের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন আলফ্রেড সরেনের ছোট বোন রেবেকা সরেন ও কন্যা ঝর্না সরেন ।

শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে আলফ্রেড সরেননের আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে বক্তারা বলেন, হত্যার ২১ বছরেও আলফ্রেড সরেন এর হত্যার বিচার হয়নি। আলফ্রেড সরেন হত্যার বিচার কার্যক্রম খুব দ্রুত সম্পন্ন করতে হবে। সমতল আদিবাসীদের জন্য পৃথক মন্ত্রণালয় ও স্বাধীন ভূমি কমিশন গঠন করতে হবে। আদিবাসীদের “আদিবাসী ” হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে। নিজ ভাষায় শিক্ষা প্রদানের যথার্থ পূর্ণ বাস্তবায়ন করতে হবে। চাকুরি,শিক্ষাসহ সকল ক্ষেত্রে আদিবাসী কোটার পূর্ণ যথার্থ বাস্তবায়ন করতে হবে। আদিবাসীদের উপর সকল নির্যাতন, খুন ধর্ষণ, ভূমি দখল,ভূমি থেকে উচ্ছেদ, হত্যা গুম এসবের দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে অতিদ্রুত বিচারিক কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। সমতল আদিবাসীদের জন্য বাজেট এর পরিমাণ বাড়াতে হবে। করোনা মহামারীতে আদিবাসীদের পৃথক প্রণোদনা এবং প্রণোদনা বৃদ্ধিসহ সুষ্ঠুভাবে প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে। জাতীয় আদিবাসী পরিষদের ৯দফা দাবির দ্রুত পূর্ণ বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *