জাতীয় আদিবাসী পরিষদের উদ্যোগে নাটোরের লালপুর ও সিংড়া আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস পালিত

সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী: গতকাল ৯ আগস্ট নাটোরে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস উপলক্ষে আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি, পৃথক ভূমি কমিশন এবং বিকল্প কর্মসংস্থানের দাবি জানিয়েছেন আদিবাসী নেতারা।

“কাউকে পিছনে ফেলে নয় আদিবাসীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় নতুন সামাজিক অঙ্গীকারের আহ্বান” প্রতিপাদ্য নিয়ে সোমবার সকাল ১০টায় জাতীয় আদিবাসী পরিষদের লালপুর উপজেলা শাখার আয়োজনে গোপালপুর রেলগেট এলাকায় আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবসে আয়োজিত এক পথসভায় এই দাবি জানান ।

দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা চত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে সেখান থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‍্যালী বের করা হয়। র‍্যালীটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে রেলগেট এলাকায় এসে সমবেত হয়।

পরে সেখানে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের লালপুর উপজেলা শাখার সভাপতি শংকর বাগদির সভাপতিত্বে পথ সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের নাটোর জেলা কমিটির সভাপতি প্রদীপ লাকড়া, সাধারণ সম্পাদক মুন্ডা কালিদাস রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাদু কুমার দাস, সদস্য সুজল পাহান, হেমন্ত পাহান, নির্মল পাহান, নাটোর সদর কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্যামলাল তেলী, লালপুর উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজল বাগদি, উপদেষ্টা অনুপ ঠাকুর, পূজা উদযাপন পরিষদের উপজেলা শাখার সভাপতি স্বপন ভদ্র, জাতীয় হিন্দু মহাজোটের রাজশাহী বিভাগীয় সমন্বয়কারী সুভাষ সরকার, উপজেলা শাখার সভাপতি জ্যোতির্ময় ভদ্র প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, পর্যটন শিল্প, পার্ক নির্মাণের নামে আদিবাসীদের উচ্ছেদ, নানা প্রক্রিয়ায় হাজার কোটি টাকা সমমূল্যের ভূমি বেদখল করা হয়েছে। এখনও এ প্রক্রিয়া চলমান আছে। এসব ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তারা আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি, সমতলের জন্য পৃথক ভূমি কমিশন গঠন, বেকার যুবকদের বিকল্প কর্মসংস্থানের সুযোগ ও অন্তর্ভুক্তকরণ সহ নয় দফা দাবি জানান।


এছাড়া জাতীয় আদিবাসী পরিষদের নাটোরের সিংড়া উপজেলায় শাখার আয়োজনে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস উপলক্ষে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিংড়া পৌর সভার মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সিংড়া উপজেলা সভাপতি পরিতোষ উরাও, সাধারণ সম্পাদক রঘুনাথ এক্কা প্রমুখ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *