রংপুরের পীরগঞ্জে আদিবাসীদের বসতবাড়ী উচ্ছেদের অভিযোগ

রংপুরের পীরগঞ্জে আদিবাসীদের বসতবাড়ী উচ্ছেদের অভিযোগ উঠেছে বন বিভাগের বিরুদ্ধে। পীরগঞ্জ উপজেলার বড় আলমপুর ইউনিয়নের পাটগ্রাম মৌজায় বনবিভাগ স্থানীয় সাঁওতাল আদিবাসীদের বসতবাড়ী উচ্ছেদ করে সামাজিক বনায়নের পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ করেন আদিবাসীরা।

স্থানীয় আদিবাসীরা বলছেন, শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে তারা এই ভূমিতে বসবাস করে আসছে। তাদের আগে তাদের পূর্ববর্তী কয়েক প্রজন্ম এই ভূমিতেই বসবাস করেছিল। যদিও এই ভূমির মালিকানা নিয়ে কিছু অসংগতি রয়েছে। তবুও প্রথাগত রীতি অনুযায়ী আদিবাসীরাই এই ভূমির মালিকানার দাবিদার। কিন্তু বন বিভাগ সেইসব রীতি নীতির তোয়াক্কা না করে আদিবাসীদের বসতবাড়ী উচ্ছেদের হুমকি দিচ্ছে।

এদিকে বন বিভাগের এমন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠছে আদিবাসীরা। রবিবার (৫ জুন) আদিবাসীদের ও ভূমিহীনদের নিয়ে একটি সমাবেশ করেছে পীরগঞ্জ উপজেলা ভূমিহীন কল্যান সমিতি। রমিডিয়াস মূর্মুর সভাপতিত্বে ও দেলোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোকলেছুর রহমান, জহির উদ্দিন,সাবেক ইউপি সদস্য সিদ্দিক মিয়া,আদিবাসী নেতা রোজিনা সরেন, যোসেফ মূর্মু, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি পীরগঞ্জ উপজেলা সভাপতি এডভোকেট আবু সুফিয়ান হিরু, সাপ্তাহিক বজ্রকথা প্রকাশক ও সম্পাদক কবি সুলতান আহম্মেদ সোনা,উপজেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি এডভোকেট কাজী লুমুম্বা লুমু প্রমুখ।

কাজী লুমুম্বা লুমু বলেন,শতাধিক বছরের পূর্বপুরুষের বসতভিটা থেকে আদিবাসীদের উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আইন পরিপন্থী। রাষ্ট্রের চরিত্র লুটেরা হওয়ায় বনবিভাগ রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার ‘পাটগ্রামে’র আদিবাসীদের উচ্ছেদে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।তিনি আরো বলেন,১৮৫৫ খ্রিস্টাব্দে উপমহাদেশে ব্রিটিশ শোষক-শাসকদের বিরুদ্ধে প্রথম সংগঠিত প্রতিবাদ-প্রতিরোধ ও প্রথম সশস্ত্র সংগ্রাম এবং ৭১-এ সাহসী স্বাধীনতা সংগ্রামী আদিবাসীদের উত্তরসূরীগন যেভাবে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল সেইভাবে বন বিভাগের এমন অমানবিক ও অন্যায় সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেও আদিবাসীদের রুখে দাড়াতে হবে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *