উইন্ডসরের সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে সমাহিত প্রিন্স ফিলিপ

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী প্রয়াত প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে উইন্ডসর দুর্গে। এখানের সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে চিরনিদ্রায় শায়িত হন ডিউক অব এডিনবরা। শনিবার (১৭ এপ্রিল) ব্রিটেনের স্থানীয় সময় বিকেল তিনটায় রাজকীয় অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া শুরু হয়। অনুষ্ঠানটি টিভিতে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। গত ৯ এপ্রিল শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ৯৯ বছর বয়সী ফিলিপ।

ব্রিটেনে এখন করোনাভাইরাস মহামারির কারণে যেসব বিধি-নিষেধ জারি রয়েছে, তার সঙ্গে সংগতি রেখে এই শেষকৃত্যানুষ্ঠানে মাত্র ৩০ জন অতিথি উপস্থিত ছিলেন। তারা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেছেন এবং মাস্ক পরে ছিলেন। অতিথিদের তালিকায় ছিলেন রানি এলিজাবেথ ও ডিউক অব এডেনবার্গের পরিবারের সদস্যরা।

প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য অনুষ্ঠান উপলক্ষে দীর্ঘদিন পর আবারো ব্রিটিশ রাজপরিবারের সাথে একত্রিত হয়েছেন প্রিন্স হ্যারি। শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে বড় ভাই প্রিন্স উইলিয়ামের সাথে একত্রে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। তিনি সরাসরি যুক্তরাষ্ট্র থেকে এখানে এসেছেন। তবে তার স্ত্রী মেগান আসতে পারেননি। আগত সন্তান ধারণ করায় চিকিৎসকরা তাকে ভ্রমণ করতে নিষেধ করেছেন।

ডিউক অব এডিনবরা প্রিন্স ফিলিপের কফিন বহন করা হয়েছে একটি ল্যান্ড রোভার গাড়িতে, যার নকশা প্রিন্স ফিলিপ নিজেই করেছিলেন। ইংলিশ ওক কাঠের তৈরি কফিনটি ৩০ বছরের বেশি আগে তৈরি করা হয়েছিল। এটির সঙ্গে মিল রয়েছে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য তৈরি করা কফিনের।

ঐতিহ্যগতভাবেই রাজপরিবারের সদস্যদের এই কাঠের তৈরি কফিনে সমাহিত করা হয়। কারণ এতে মরদেহ অনেক দিন সংরক্ষিত থাকে। প্রিন্সেস ডায়ানার মরদেহও এই ধরনের কফিনে সমাহিত করা হয়েছিল। যেটির ওজন ছিল এক টনের চার ভাগের এক ভাগ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *