বিকেএসপি’র ফুটবল শাখায় প্রথম আদিবাসী শিক্ষার্থী অয়ন্ত মাহাতো

সিরাজগঞ্জের আদিবাসী প্রমীলা একাডেমির ফুটবলার ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী অয়ন্ত মাহাতো বিকেএসপির ফুটবল শাখায় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। রায়গঞ্জ উপজেলার মধ্যে তথা আদিবাসীদের মধ্যে এই প্রথম সে এই সুযোগ পেল বলে নিশ্চিত করেছেন সিরাজগঞ্জ জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা মো. মাসুদ রানা। ঐ কর্মকর্তা বলেন, ‘বিকেএসপি ২০২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির জন্য রাজশাহী বিভাগে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত খেলোয়াড়দের মধ্যে অয়ন্ত মাহাতো ২৯তম স্থান পেয়েছে।

অয়ন্ত মাহাতোর বাড়ি রায়গঞ্জ উপজেলার সোনাখাড়া ইউনিয়নের গোতিথা গ্রামে। তার বাবা বরিষা মাহাতো ও মা শেফালী রাণী মাহাতো উভয়েই হত দরিদ্র দিন মজুর। অয়ন্ত তাড়াশের বিষমডাঙ্গা গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। শৈশব থেকেই অভাব অনটনের চরম প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে তার পড়ালেখা চালিয়ে আসছিল। অয়ন্ত মাহাতো জানায় বিকেএসপিতে ভর্তির মাধ্যমে ফুটবল খেলার পাশাপাশি মানসম্মত শিক্ষা গ্রহণেরও সুযোগ হয়তো হবে। মাহাতোর স্বপ্ন, আগামীতে জাতীয় দলে ফুটবল খেলবে।

সম্প্রতি বাফুফে-ইউনিসেফ আয়োজিত ট্যালেন্ট হান্ট বাছাই (অনূর্ধ্ব-১২) জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ অনুষ্ঠিত হয়। এতে অয়ন্ত মাহাতোর কৃতিত্বে সিরাজগঞ্জ জেলা দল ৩-০ গোলে নওগাঁ জেলাকে হারিয়ে রাজশাহী বিভাগীয় চ্যাম্পিয়ন হয়।

সিরাজগঞ্জ আদিবাসী প্রমিলা একাডেমির পরিচালক সুশীল কুমার মাহাতো বলেন, ‘একাডেমির সকল সদস্য মেয়ে ও আদিবাসী সম্প্রদায়ের সন্তান। পারিবারিকভাবে এসব মেয়েরা অতি দরিদ্র। তাদের বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা করতে ও বিদ্যালয়ে ঝরে পড়া থেকে বাঁচাতে প্রমিলা একাডেমি কাজ করছে। অয়ন্তর এই অর্জনে একাডেমি গর্বিত। উপযুক্ত পৃষ্ঠপোষকতা পেলে মেয়েটি অনেক বড় সাফল্য অর্জন করতে পারে বলে তিনি দাবি করেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *