বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমস: ২৩ আদিবাসী খেলোয়াড়ের পকেটে ১৬ টি স্বর্ণ, ৫ টি সিলভার ও ৭ টি ব্রোঞ্জ পদক

গত ১ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমস-২০২০ এর পর্দা নামছে আজ। দেশব্যাপী বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত এসব ইভেন্টে ইতিমধ্যেই অনেক আদিবাসী খেলোয়ার চ্যাম্পিয়নশিপের মুকুট নিয়ে জয় করেছেন স্বর্ণপদক।
ইতোমধ্যেই বক্সিং-এ দ্বিতীয়বারের মত দেশসেরা চ্যাম্পিয়ন হয়ে স্বর্ণ জিতেছেন রাঙ্গামাটির কৃতি সন্তান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সুর কৃষ্ণ চাকমা। ঢাকার মোহাম্মদ আলী স্টেডিয়ামে এই ফাইনাল ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে নেভি শুটিং ক্লাবের হয়ে স্বর্ণপদক জিতেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থী তুরিং দেওয়ান। শুটিংয়ে নারীদের ১০ মিটার এয়ার পিস্তল জুনিয়র বিভাগে তিনি এই পদক লাভ করেন। ঢাকার গুলশানে অনুষ্ঠিত আয়োজনে ৫৪৮ স্কোর করে গত ৪ এপ্রিল তুরিং এই পদক লাভ করেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী নারায়নগঞ্জ রাইফেল ক্লাবের মেহজাবীনকে (স্কোর ৫৪১) হারিয়ে এই পদক লাভ করেন তুরিং।

এদিকে বান্দরবানের জেলা জিমন্যাশিয়ামে কারাতে ইভেন্টের গত ৬ এপ্রিল নারীদের একক কাতায় বান্দরবান জেলা ক্রীড়া সংস্থার নু মে মারমা স্বর্ণ লাভ করেন। ২০১৯ এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী বাংলাদেশ আনসারের হুমায়রা আক্তার অন্তরকে হারিয়ে নু মে মারমা’র এই অর্জন ছিল আলোচিত। উক্ত ইভেন্টে কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার এলিক মারমাও ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছেন। এছাড়া সুইপ্রু মারমা ৪৮ কেজি জুডো ইভেন্টে লাভ করেছেন স্বর্ণপদক।এছাড়া সিংগমা প্রু মারমা জুডোতে পেয়েছেন স্বর্ণ। ৭৩ কেজি জুড়োতে বামে প্রু মারমাও জিতেছেন স্বর্ণ। রাগবি’তে পেয়েছেন অংম্রাচিং মারমা। এছাড়া ৫২ কেজি জুডো ও কুস্তিতে মাসুমু মারমা জিতে নিয়েছেন একটি গোল্ড ও একটি সিলভার।

এছাড়া খো খো ইভেন্টে স্বর্ণ লাভ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থী ভানরাম লাম বম এবং গ্রুপ আর্চারি তেও ভানরাম পেয়েছেন আরেকটি স্বর্ণ। এদিকে খো খো ইভেন্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে লালরিনখুয়াম বমও জিতেছেন স্বর্ণপদক। এছাড়া মিল্টন বম নামে আরেক খেলোয়ার জিতেছেন রূপা। এছাড়া সুনীল ত্রিপুরা গ্রুপ খো খো তে জিতেছেন স্বর্ণ।

এদিকে গত ৭ এপ্রিল তায়কোয়ান্দোতে স্বর্ণপদক জিতেছেন বাংলাদেশ আনসারের মাইনু মারমা। অনূর্ধ্ব-৫৭ কেজি ওজন শ্রেণিতে এই পদক জেতেন তিনি। চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার জান্নাতুল তামান্নাকে ২৫-২ স্কোরে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছেন তিনি। এছাড়া তায়কোয়ান্ডোতে জিন রুয়ান লাং বম জিতেছেন একটি ব্রোঞ্জ এবং একই ইভেন্টে জিন রাম কিম বম এবং মিলেনিয়াম বম জিতেছেন দু’টি করে ব্রোঞ্জ পদক।

এছাড়া প্রদীপ্ত চাকমা গ্রুপ আর্চারি তে ১ টি স্বর্ণ, উমিয়াচিং মারমা একই ইভেন্টে জিতেছেন সিলভার। মেসাই ওয়াং মারমা অনুর্ধ ৬১ কেজি কুমি কারাতে ইভেন্টে জিতে নিয়েছেন একটি সিলভার। একই খেলার ৬৭ কেজির ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জিতে নিয়েছেন বাচিং মং মারমা।

এদিকে ভারোত্তোলনে নারীদের ৫৫ কেজি ওজন বিভাগে বাংলাদেশ আনসারের ফুলপতি চাকমা ক্লিন এন্ড জার্কে ৮৪ কেজি ও স্ন্যাচে ৬৭ কেজি মিলিয়ে ১৫১ কেজি তুলে স্বর্ন জিতেন । পাহাড়ের আদিবাসী খেলোয়ারদের এই সাফল্যে অনেকেই অভিনন্দন জানাচ্ছেন এবং শুভকানায় ভাসাচ্ছেন শুভাকাঙ্খীরা।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *