ঠাকুরগাঁওয়ে আদিবাসী নারীর উপর হামলাঃ দ্রুত ব্যাবস্থা নেওয়ার দাবি

ঠাকুরগাও জেলার সদর উপজেলার কালেশ্বরগাও গ্রামের কোচ সম্প্রদায়ের আদিবাসী জগদীশ চন্দ্র বর্মনের পরিবারের উপর হামলা করে আশরাফুল ইসলাম সহ ৭-৮ জনের একটি দল। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে জগদীশ চন্দ্র বর্মনের নিজের জমিতে লাগানো বাশ জোড়পুর্বক কেটে নেওয়ার সময় ও জমি দখলে বাধা প্রদান করলে, আসামীরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে জগদীশ চন্দ্র বর্মনের পরিবারের উপর হামলা করে।

আসামীদের হামলায় গুরুত্বরভাবে আহত হয় জগদীশ চন্দ্র বর্মনের স্ত্রী করুনা রাণী(৪৫), উনার বৃদ্ধা মা নিশি বালা (৮৫) ও উনার ছেলে অপু বর্মন(২০)। বর্তমানে উনারা ঠাকুরগাও সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

উক্ত ঘটনার পরে জগদীশ চন্দ্র বর্মন বাদী হয়ে আশরাফুল ইসলামকে প্রধান আসামী করে ১০ জনের নামে সদর থানায় একটি মামলা করেছেন।

মামলার বিবরণীতে তিনি উল্লেখ্য করেন যে, দীর্ঘ দুই-তিন মাস ধরে আসামীরা নানা ভাবে জগদীশ চন্দ্র বর্মনের পরিবারের উপর অত্যাচার ও অহেতুক নিপিড়ন, হুমকি ধুমকি দিয়ে আসছিল। গত ৫ ই মার্চ, ২০২১ এ জগদীশ চন্দ্র বর্মনের মেয়ের বিয়ে অনুষ্ঠানেও আসামীরা বাধা প্রদান করেন ও ঝামেলা সৃষ্টি করেন। অতঃপর ১৬ ই মার্চ,২০২১ আনুমানিক সকাল ১১ টার দিকে আসামিরা পুর্বপরিকল্পিতভাবে, জগদীশ চন্দ্র বর্মনের জমি দখল ও বাশ কেটে নেওয়ার চেষ্ঠা চালায়। এতে বাধা প্রদান করলে, আসামীরা দল-বল ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে উনার পরিবারের উপর হামলা করেন।

পরবর্তীতে, নেন্দ বর্মন, ফুলফুলি রাণী, আবুল কালাম আজাদ সহ স্থানীয় এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে আসামীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন এবং যাওয়া সময় সর্বসমুক্ষে হুমকি দেন যে, আজকে তোমরা প্রাণে বেচে গেলা, আরেকদিন সুযোগ পেলে তোমাদের কুপিয়ে হত্যা করে মাটির ভিতর পুতে রেখে যাব।

এ ব্যপারে বাংলাদেশ কোচ আদিবাসী ইউনিয়ন এর ঠাকুরগাও জেলার সাধারণ সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় বর্মন আপেল জানান, ক্ষমতা ও জোড় খাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আসামীরা সাম্প্রদায়িক ভাবে উস্কানি সৃষ্টি ও ভিক্টিমের জমি ও বাশ দখল করার জন্য চেষ্ঠা চালাচ্ছিল। আজ উনাদের বাধা প্রদান করলে, উনারা আমাদের পরিবারটির উপর হামলা করেন। আমরা আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবী করছি।

বাংলাদেশ কোচ-রাজবংশী-বর্মন সংগঠনের সদর উপজেলা শাখার সভাপতি পরিমল চন্দ্র বর্মন জানান, আমাদের পরিবারটির উপর যা হয়েছে তা কোন ভাবেই মেনে নেওয়ার মত না। আমরা ইতিমধ্যে প্রশাসনের সাথে বিস্তারিত কথা বলেছি এবং প্রশাসনকে ২৪ ঘন্টার আলটিমেটাম দিছি। এর মধ্যে আসামী গ্রেপ্তার না হলে, আমরা আমাদের সংগঠন থেকে কঠিন কর্মসুচী ঘোষনা করবো।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *