চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে আদিবাসীদের বিক্ষোভ মিছিল ও স্মারকলিপি প্রদান

সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ গোমস্তাপুর থেকে: জাতীয় আদিবাসী পরিষদ গোমস্তাপুর উপজেলা কমিটির উদ্যোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার লোলাপুর গ্রামের শ্রী পচা কিসপট্টার জমি জবরদখল, নারীদের উপর বর্বর হামলা, গুরুতর জখম ও নির্যাতনকারী বড়দাদপুর গ্রামের ভূমিদস্যু ও জালিয়াতকারী মো: জিন্নাহসহ জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও ইউএনও বরাবর স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি আজ ১১ মার্চ বৃহস্পাতিবার দুপুর ১২টায় উপজেলা চত্ত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলার খোয়ার মোড় থেকে শুরু হয়ে ইউএনও কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সভাপতি বিচিত্রা তির্কীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন, সাধারণ সম্পাদক সবিন চন্দ্র মুন্ডা, সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল চন্দ্র রাজেয়াড়, দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নরেন পাহান, কোষাধ্যক্ষ সুধির তিরকী, কেন্দ্রীয় সদস্য বিভূতী ভূষণ মাহাতো, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সাধারণ সম্পাদক টুনু পাহান, আদিবাসী যুব পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি নবদ্বীপ লাকড়া, নওগাঁ জেলা সভাপতি মার্টিন মুর্মু, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান, সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা প্রমূখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, শ্রী পচা কিসপট্টা ও শ্রী বুদি কিসপট্টার পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত ভোগদখলকৃত জমি জবরদখলের চেষ্টা ও হামলার ঘটনার মূলহোতা মো: জিন্নাহসহ জড়িত সকলের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানান। একই সাথে থানার ওসি দিলীপ কুমার দাসের অপসারণ দাবি করেন বক্তারা।

স্মারকলিপির লিখিত অভিযোগে বলা হয়, আমি শ্রী পচা কিসপট্ট, পিতা: মৃত লবো সরদার, গ্রাম: লইলাপুর বড়দাদপুর, গোমস্তাপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ। গোমস্তাপুর উপজেলার পার্বতীপুর ইউনিয়নের আমার নিম্ন তফসিলভুক্ত বর্ণিত সম্পত্তি আমি ও আমার ভাই শ্রী বুদি কিসপট্ট ওরস সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে মালিক হয় এবং ভোগদখল করি। কিন্তু গত ২৮/০২/২০২১ তারিখ রোববার বাড়িঘর নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করলে বড়দাদপুর গ্রামের ১৩ জন স্থানীয় সন্ত্রাসী আমাদের ওপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে আহত করে, এমনকি আদিবাসী মহিলাদের শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করে। ঘটনার পরে স্থানীয়রা আমাদের উদ্ধার করে গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে আশঙ্কাজনক অবস্থায়। এবং আমার স্ত্রী পলো তিগ্যা শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে। ঘটনার পর গত ১/০৩/২০২১ তারিখ সোমবার গোমস্তাপুর থানায় এজাহার করার জন্য গেলে ওসি না থাকার কারণে দায়িত্বপ্রাপ্ত ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা এজাহারটি দেখে এবং ওসি আসলে বিষয়টি দেখবেন বলে ডিউটি অফিসারকে এজাহারটি দিতে বলেন। তারপরে এসআই সাখাওয়াত ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত না করে উল্টো বাদীকে থাানায় ডাকেন এবং মীমাংসার কথা বলে কিন্তু বাদী মীমাংসা করবেন না মামলা অন্তর্ভুক্ত কররে পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য বলেন। তারপর গত ৪/৩/২০২১ তারিখে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি বিচিত্রা তির্কী কথা বলতে গেলে মামলা গ্রহণ করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন এবং তার সাথে অশালীন আচরণ করে থানা থেকে বের করে দেন এরই প্রতিবাদে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়েছে। আমরা আদিবাসী সারাজীবন অবহেলিত। আমাদের কথা শোনার কেউ শোনে না। থানায় অভিযোগ দেওয়ার পরে কোন পদক্ষেপ না দিয়ে ওসি আমাদের দুর্ব্যবহার করে অবিলম্বে এই ওসির আমরা অপসারণ চাই, করতে হবে এবং এই ঘটনার সাথে যারা সম্পৃক্ত অবিলম্বে তাদের গ্রেফতার করতে হবে। নইলে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। আরো প্রকাশ থাকে যে, শ্রী পচা কিসপট্ট, ও শ্রী বুদি কিসপট্টা এদের পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত জমির: ৬.৮৭ একর, মধ্যে: ০.৫০০০ একর সম্পত্তি সাবেক চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেন হোসেন ও টেক্কা এই দুইজন আদিবাসীদের জমি জাল দলিল করে ভোগ দখল করে আসছে। এই দুইজন ভূমিদস্যু তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি করছি এবং আদিবাসীদের জমি পুনরুদ্ধার করে আদিবাসীদের ফিরিয়ে দেওয়া হোক এই দাবি জানাচ্ছি।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *