মুশতাকের মৃত্যুর ‘দ্রুত, স্বচ্ছ, স্বাধীন ও পূর্ণাঙ্গ’ তদন্তের আহ্বান ১৩ দেশের রাষ্ট্রদূতের

কাশিমপুর কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এ ঘটনার স্বচ্ছ ও স্বাধীন তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ১৩ দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার।

অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (ওইসিডি) ভুক্ত ১৩ দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনারের এক যৌথ বিবৃতিতে এ আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, মুশতাক আহমেদ ২০২০ সালের ৫ মে থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ধারায় বিচারপূর্ব আটক অবস্থায় ছিলেন। আমরা জেনেছি যে, তাকে বেশ কয়েকবার জামিন দিতে অস্বীকৃতি জানানো হয়েছে। আটকাধীন অবস্থায় তার প্রতি যে আচরণ করা হয়েছে, তা নিয়ে উদ্বেগ আছে।

বিবৃতিতে মুশতাকের পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলা হয়, আমরা বাংলাদেশ সরকারকে মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর একটি দ্রুত, স্বচ্ছ, স্বাধীন ও পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করতে আহ্বান জানাচ্ছি।

এতে আরও বলা হয়, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ধারাসমূহ ও এর প্রয়োগে আমাদের সরকারগুলোর যে উদ্বেগ আছে এবং একইসঙ্গে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন ও মানের প্রতি বাধ্যবাধকতার সঙ্গে এই আইনের সামঞ্জস্য সংক্রান্ত প্রশ্নগুলোর ব্যাপারে আমরা বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে অব্যাহতভাবে আলোচনা চালিয়ে যাব।

বিবৃতিতে সই করেছেন বাংলাদেশে কানাডার হাইকমিশনার বেনোইট প্রিফনটেইন, ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এসট্রাপ পিটারসন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত রেনসে টেরিঙ্ক তিরিঙ্ক, ফরাসি রাষ্ট্রদূত জাঁ মারি সু, জার্মান রাষ্ট্রদূত পিটার ফারেনহোল্টজ, ইতালির রাষ্ট্রদূত নরিকো নুনজিয়াতা, নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত হ্যারি ভারওয়েজ, নরওয়ের রাষ্ট্রদূত এসপেন রিকটার-স্ভেন্দসেন, স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো দি ওসিস বেনেতিজ সালাস, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দ্রা বার্গ ফন লিনদে, রাষ্ট্রদূত নাথালি শিউয়াখ, ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন ও মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *