অং সান সু চির মুক্তি পেছাল আরো দু’দিন

মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চির আটকাবস্থার মেয়াদ ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়িয়েছে সেনা বাহিনী। আজ সোমবার তার মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। এদিকে ইয়াঙ্গুনসহ মিয়ানমারের বিভিন্ন শহরের প্রধান সড়কে টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনীর সাঁজোয়া যান। অন্যদিকে নবম দিনের মত মিয়ানমারে চলছে সেনা শাসনবিরোধী বিক্ষোভ। মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, দুই সপ্তাহে দেশটিতে আটক হয়েছে প্রায় ৪শ বিক্ষোভকারী।

গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখলের পর থেকেই জনরোষ দমাতে একের পর এক কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় এবার রাজপথে নামানো হলো সাঁজোয়া যান। সেনা প্রধানের আহ্বান উপেক্ষা করে আন্দোলন অব্যাহত থাকায় ইয়াঙ্গুনসহ প্রধান শহরগুলোর রাস্তায় টহল দিচ্ছে সেনা সদস্যরা।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের শঙ্কা, কঠোর হাতে বিক্ষোভ দমানোর লক্ষ্যেই এই পদক্ষেপ সেনাবাহিনীর। এরই মধ্যে কাচিনে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালানো হয়েছে। সেখানে আটক হয়েছেন ৫ সাংবাদিক। ইয়াঙ্গুনে বন্ধ করা হয়েছে ইন্টারনেট সংযোগ।
অবশ্য, সাঁজোয়া যানের উপস্থিতি থোরাই কেয়ার করে টানা নবম দিনের মতো বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। ইয়াঙ্গুন, মান্দালেসহ বিভিন্ন শহরে রাজপথে নেমেছেন চিকিৎসক, আইনজীবী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ নানা পেশার মানুষ।

মিয়ানমার সেনাবাহিনী নিজ দেশের মানুষের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে বলে অভিযোগ জাতিসংঘের। চলমান পরিস্থিতিতে দেশটিতে অবস্থানরত মার্কিন নাগরিকদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছে পশ্চিমাবিশ্বও।

উল্লেখ্য নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে পহেলা ফেব্রুয়ারি অং সান সু চিসহ এনএলডির শীর্ষ নেতাদের আটক করে সেনাবাহিনী। সেনাপ্রধানের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে এক বছরের জন্য জারি হয় জরুরি অবস্থা।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *