আদিবাসী সাহিত্যের দিগবলয় : হাফিজ রশিদ খান

আদিবাসী বিষয়ে বাঙালি সমাজে একটা মিথ প্রচলিত আছে : ওরা খুব সহজ ও সরল। মানে অকপট। এই সারল্যের ভেতরেই কিন্তু রয়েছে সততার স্বচ্ছ ভুবন। যা দুর্লভ মণির মতো আরাধ্য বিষয় এখন বিশ্বজুড়ে। কেননা তা না-হলে সভ্যতার মিনারটা পূর্ণ আকার পায় না। সীমিত চাহিদায় অরণ্য ও পাহাড়ের নিবিড় নিলয়ে জীবনযাপনের সূত্রে তাদের মধ্যে এ গুণের বিকাশ ঘটেছে নিরবচ্ছিন্নভাবে। তারা সমভূমির মানুষের সঙ্গে খুব একটা মেশে না খাপ খাওয়াতে পারে না বলে। ফলে সমকালীন বাঙালি সমাজ ও রাষ্ট্রবিষয়ে অনেক ধ্যান-ধারণা থেকে ওদের বেশির ভাগের কিছুটা বিযুক্তি রয়েছে। তবে সেই বৃত্তাবদ্ধতা ভেঙে বেরিয়ে আসছে নতুন প্রজন্ম। বিদ্যাবুদ্ধির গৌরব ও সজাগ অন্তর নিয়ে। তারা এখন রাষ্ট্রের কাছে সোচ্চার অধিকার ও তাদের নাগরিকসুলভ প্রাপ্তি নিয়ে। সচেতনতা বাড়ছে আদিবাসী আপামর জনতার ভেতরেও। চলতি কর্মপ্রবাহ ও বহির্মুখী জীবনের হাতছানিতে শামিল হচ্ছে তারা দৃঢ় পায়ে। বাংলাদেশের তিন পার্বত্য জেলা ও সমতলের আদিবাসীরা প্রায় ৩০টির মতো ভাষায় কথা বলে। তাদের নৈমিত্তিক জীবনযাপনের সঙ্গে ভাষাগুলোর রয়েছে মরমের যোগ। আছে অনেক ভাষার বর্ণমালা ও চিন্ময় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের জীবনধারা সংস্কৃতি ভাষা ও তাদের সাহিত্যকর্ম নিয়ে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন, ভেবেছেন ও তা সুধীমহলে তুলে ধরেছেন কবি হাফিজ রশিদ খান। সেখানকার মাটি ও মানুষের সাথে তাঁর হৃদয় ও চেতনা যেন মিলেমিশে একাকার। তাঁর দীর্ঘদিনের পর্যবেক্ষণ, অনুসন্ধান ও বুদ্ধিবৃত্তির সমন্বিত রূপ এ গ্রন্থ। পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের মন ও মেজাজ, তাদের সৃজন ও স্বপন, তাদের আনন্দ ও বিষাদের এ যেন এক কোষগ্রন্থ।

বইটির দাম রাখা হয়েছে ৪০০ টাকা। বইটির ISBN no :9789849487753। তবে চন্দ্রবিন্দুর ফেসবুক পেইজ ও ওয়েবসাইট থেকে ২৫ শতাংশ ছাড়ে ৩০০ টাকা দিয়ে পাঠকেরা কিনতে পারছে। এ ছাড়া ঢাকায় কনকর্ড এম্পোরিয়াম কমপ্লেক্সে ‘দেশলাই’ এর শো রুমে পাওয়া যাবে। অর্ডার করা যাবে রকমারিতেও।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *