সিমসাং নদীর অবৈধ বালু উত্তোলনের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

নেত্রকোনা জেলার দূর্গাপুর উপজেলার সিমসাং(সোমেশ্বরী) নদীর অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ এবং নদী ভাঙ্গন রোধে বাঁধ নির্মাণ ও ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতার দাবিতে মধুপুরের ভূটিয়া হাইস্কুল মোড়ে মানববন্ধনের আয়োজন করেন বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন(বাগাছাস)কেন্দ্রীয় সংসদ।

বাগাছাস কেন্দ্রীয় সংসদ এর সভাপতি জন যেত্রা সভাপতিত্বে, জ্যাক হাজং এর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাগাছাস কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি জন যেত্রা তিনি বলেন, অবৈধ বালু উত্তোলনের ফলে ঐতিহ্যবাহী গারো গ্রামগুলো বিলীন হয়ে যাচ্ছে। আজ আদিবাসীরা একত্রিত হয়েছে কারণ এই অন্যায় আর মেনে নেওয়া যাবে না।তাই প্রত্যেকের নিজনিজ জায়গা থেকে প্রতিবাদ করতে হবে।মনে রাখতে হবে নিজেদের অন্যায অধিকার নিজেদেরই সংগ্রাম করে অধিকার আদায় করতে হবে।

সমাজকর্মী হেলিন যেত্রা বলেন, মধুপুরেই শুধু সমস্যা নয়,দূর্গাপুরেই শুধু সমস্যা নয় যেখানেই আদিবাসী মানুষের বসবাস সেখানেই সমস্যা।অবৈধ বালু উত্তোলনের ফলে সেখাকার চাষাবাদ জমি ঘরবাড়ি গ্রামসহ বিলীন হয়ে যাচ্ছে। এইভাবে যদি চলতে থাকে তাহলে আদিবাসী মানুষরা কোথায় যাবে। এই সিমসাং(সোমেশ্বরী) নদীর বালু উত্তোলনের ফলে গুটিকয়েক মানুষ লাখপতি হচ্ছে কিন্তু ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সবাই। তাই যত দ্রুত সম্ভব অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ হোক।

কেন্দ্রীয় সংসদ বাগাছাসের সাধারণ সম্পাদক অলিক মৃ বলেন,দূর্গাপুর উপজেলার যে পাঁচটি গ্রাম আজ সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে অর্ধেক গ্রাম আজ বিলীন হয়ে গেছে। এই রাষ্ট্রের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি অতি দ্রুত স্থায়ী বাঁধ নিমার্ণ করতে হবে।যাতে আর কোন গ্রাম বিলীন না হয়ে যায়। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাঁদেরকে দ্রুত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। এই বাংলাদেশের প্রত্যেকটা আদিবাসীর নিরাপত্তা দেওয়া রাষ্টের দায়িত্ব। শুধু মাত্র সোমেশ্বরী সমস্যা নয়, বাসন্তী রেমার সমস্যা নয়, এমনি অনেক শতশত সমস্যা পাহাড় এবং সমতলে রয়েছে যা আদিবাসীদের সুরক্ষায় রাষ্টের দায়িত্ব রয়েছে এবং আদিবাসীদের নিরাপত্তা রাষ্ট্রকে নিশ্চিত করতে হবে।

আহ্বায়ক,বাগাছাস,ঢাকা মহানগর শাখার ডন যেত্রা বলেন,আমরা দাবি জানাই যারা অবৈধ বালু ব্যবসার সাথে জড়িত তাদেরকে অতিশীঘ্র আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে। এবং যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাঁদের কে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। স্থায়ী বাঁধ করতে হবে। এই নদী,এই বন, এই মাটি না থাকলে আদিবাসী মানুষরা বেঁচে থাকতে পারে না।

সভাপতির বক্তবে জন যেত্রা বলেন,যেখানেই বারবার নিপীড়ন হয়, যেখানেই আদিবাসীদের সমস্যা হয় সেখানেই বাগাছাস প্রথম সারিতে থেকে লড়াই করে যাচ্ছে। আজকে আমরা সংশয় প্রকাশ করি, আর কত ঘরবাড়ি ভাঙ্গলে আর কত গ্রাম বিলীন হলে প্রসানের টনক নড়বে।আজ আপনাদের বলতে চাই দূর্গাপুর বাসী আপনারা একা নন আমরা মধুপুরবাসী সারা বাংলাদেশের আদিবাসী আপনাদের সাথে আছে।আমরা নদী,পাহাড়,প্রকৃতি কে ভালোবাসি। অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ করে প্রকৃতিকে নিজের মতো করে চলতে দিতে হবে। অবিলম্বে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করতে হবে,ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে দাবি জানিয়ে মানববন্ধন সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, বাগাছাস কেন্দ্রীয় সংসদের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক প্রেমাতুষ ম্রং, বাগাছাস ঢাকা মহানগর শাখার সদস্য সচিব শোভন ম্রং, বাগাছাস মধুপুর শাখার সভাপতি নিউটন মাজিসহ প্রমূখ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *