আদিবাসী নারীর উপর ক্রমাগত সহিংসতা ও ধর্ষণের ঘটনায় সকল দোষীদের গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছে কাপেং ও আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক

গত কয়েকদিন আদিবাসী নারীদের উপর ক্রমাগত সহিংসতা ও নির্যাতনের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক ও কাপেং ফাউন্ডেশন। তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে উক্ত বিবৃতিতে উক্ত দুই সংগঠন খাগড়াছড়ির ঘটনায় জড়িত দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও শাস্তির জোর দাবি জানিয়েছে।

কাপেং ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক পল্লব চাকমা এবং আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের সমন্বয়ক ফাল্গুনী ত্রিপুরা স্বাক্ষরিত উক্ত বিবৃতিতে বলা হয় যে, আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, গত ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে বৃহস্পতিবার রাত প্রায় আড়াইটার সময় খাগড়াছড়ি সদরের ১নং গোলাবাড়ি ইউনিয়নের বলপিয়ে আদাম নামক গ্রামের নিজ বাড়ীতে দরজা ভেঙ্গে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত প্রায় ৯ জন সেটেলার বাঙালী মানসিক প্রতিবন্ধী এক চাকমা নারীকে (২৬) গণধর্ষণ ও তাদেও বাড়ীতে লুটপাট করেছে। এ ব্যাপারে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে খাগড়াছড়ি সদর থানায় মামলা করলে গত ২৫ সেপ্টেম্বরে কয়েকজন আসামী গ্রেপ্তার করা হলেও অন্য আসামীদের এখনো গ্রেপ্তার করা হয়নি।

এছাড়াও গত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ দীঘিনালায় এক পুলিশ সদস্য কর্তৃক এক আদিবাসী স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ সন্ধ্যা ৫.৩০টার সময় মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ থানান ৭নং আদমপুর ইউনিয়নের কাটাবিল গ্রামের বাসিন্দা উমেদ মিয়া কর্তৃক মনিপুরী এক নারী (৬০) শারীরিক নির্যাতনের শিকার হন। ভুক্তভোগীর ছেলে বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় মামলা করলেও আসামীকে এখনো গ্রেপ্তার করা হয়নি।

এই কোভিড মহামারির সময়ে আদিবাসী নারীদের প্রতি সহিংসতার মাত্রা চরম আকারে ধারণ করেছে বলে উক্ত বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা জানানো হয় ।উল্লিখিত ঘটনাসমূহের সাথে জড়িত সকল দোষীদের গ্রেপ্তার করে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার জন্য জোর দাবি জানান সংগঠন দু’টি।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *