জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সংগ্রাম ও গৌরবের ২৭ বছর

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষে আজ ৩১ আগষ্ট ২০২০ তারিখ সকাল ১১.০০ টায় বর্তমানে আদিবাসীদের জীবনের সংকট এবং তাদের মানবাধিকার পরিস্থিতি প্রসঙ্গে রাজশাহীর মহানগরীর আলুপট্টির মুক্তযুদ্ধ পাঠাগারে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বর্তমানে আদিবাসীদের জীবনের সংকট এবং তাদের মানবাধিকার পরিস্থিতি উপর মুল প্রবন্ধ পাঠ করেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল চন্দ্র রাজোয়াড়, দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় সদস্য রাজকুমার শাও, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান, সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলিপ পাহান।

সম্মেলনে মুল প্রবন্ধের বক্তব্যে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন বলেন, বর্তমানে আদিবাসীদের জীবন সংকটাপুর্ন হয়ে পড়েছে এবং তাদের মানবাধিকার পরিস্থিতি ক্রমাগতভাবে চরম অবনতি ঘটছে। আদিবাসীদের ভূমি সমস্যা দিনদিন প্রকট আকার ধারণ করেছে। এক শ্রেণীর ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন সময় আদিবাসীদের অত্যাচার, ভূমি থেকে উচ্ছেদ, জাল দলিল, হত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ, অগ্নিসংযোগ, মিথ্যা মামলা, লুটপাট জবর দখল, দেশ ত্যাগে বাধ্য করা সহ নানা নির্যাতন নিপিড়নের শিকার হয়ে আজ তারা সর্বশান্ত ও ভূমিহীনে পরিণত হয়েছে। এ অবস্থা বারবার ঘটছে। আদিবাসীরা এখন নিজ দেশে পরবাসীর ন্যায় জীবন যাপন করতে বাধ্য হচ্ছে। আদিবাসীদের উপর নিপিড়ন, ভূমি দখল, উচ্ছেদ, ধর্ষণ, হত্যার মামলায় থানা পুলিশ, স্থানীয় অসৎ জনপ্রতিনিধি ও ভূমি অফিসের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীদের পক্ষাবলম্বন করে সহায়তা করে আসছে। ফলে আদিবাসীরা আরও অসহায় হয়ে পড়ছেএ প্রসঙ্গে অতীতে ঘটে যাওয়া এবং সম্প্রতিক সময়ের কিছু মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা তুলে ধরেন।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় বলেন, বর্তমান ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগসহ সকল প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল আদিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষে তাদের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছে। তাদের নির্বাচনী ইশতেহার দেখে আদিবাসী জনগন আসস্ত ও বিশ্বাস করেছিল যে, এবার তাদের জীবনমানের উন্নয়ন ও অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। কিন্তু বাস্তবে কিছুই হয় নি। একই সাথে তিনি বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর নাচোল উপজেলায় টংপাড়া আদিবাসী পল্লিতে ক্রমাগত ভাবে এলাকার ভূমি সন্ত্রাসী তরিকুল ইসলাম আদিবাসী নির্যাতন, ভূমি দখল ও বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে আসছে। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং তার শাস্তির দাবি করি।

দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম তার বক্তব্যে বলেন, সমতল আদিবাসীদের জন্য পৃথক মন্ত্রণালয় গঠনের মাধ্যমে জাতীয় বাজেটে ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দিতে হবে। আদিবাসী অধ্যুষিত জেলাগুলোতে আদিবাসী সাংস্কৃতিক একাডেমী প্রতিষ্ঠা, রাজশাহী বিভাগীয় আদিবাসী সাংস্কৃতিক একাডেমীতে উপ-পরিচালক পদে নিয়োগসহ, দিনাজপুর, নওগাঁর আদিবাসী সাংস্কৃতিক একাডেমীতে দ্রুত জনবল নিয়োগ করতে হবে।

আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান বলেন, সকল আদিবাসী জাতিসত্তার শিশুদের জন্য নিজ মাতৃভাষায় প্রাথমিক স্তরে শিক্ষাদানের ব্যবস্থাসহ পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন এবং আদিবাসী শিক্ষক নিয়োগ করতে হবে। সকল উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তিও বিশেষ সুযোগ, ১ম ও ২য় শ্রেণীসহ সকল সরকারি চাকুরীর ক্ষেত্রে কোটা কার্যকর করতে হবে।

কর্মসূচি: জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী জেলা কমিটির আয়োজনে ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ রাজশাহী মহানগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলায় একযোগে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের ৯ দফা দাবিতে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সমাবেশ, মানববন্ধন, মিছিল অনুষ্ঠিত হবে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *