পার্বত্য চট্টগ্রাম পুরোটাই একটি সেনানিবাসে পরিণত হয়েছেঃ সন্তু লারমা

শ্যাম সাগর মানকিন; ঢাকাঃ পার্বত্য চট্টগ্রাম পুরোটাই একটি সেনানিবাসে পরিণত হয়েছে, যেদিকে তাকাই শুধু অবিশ্বাস, প্রতারণা, তাছাড়া কিছু দেখা যায়না। পাহাড়ে সেনাবাহিনীর ভূমিকার সমালোচনা করে পার্বত্য চুক্তির ১৯ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে হোটেল সুন্দরবনে এক আলোচনা সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় (সন্তু) লারমা এ কথা বলেন।
তিনি পাহাড়ে পর্যটন ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন বিষয়ে বলেন, উন্নয়নের নামে সরকার যে কার্যক্রম চালাচ্ছে তা পার্বত্য চট্টগ্রামের জুম্ম জনগণের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াচ্ছে। চুক্তির ১৯ বছর পর কাপ্তাই বাধের ফলে বসত ভিটা হারানো জুম্ম জনগোষ্ঠীর যে অনুভুতি হয়েছিল, আজকে আমাদের অনুভুতিও একইরকম। আলোচনা সভায় চুক্তি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারের রাজনৈতিক স্বদিচ্ছা নেই বলেও জানান তিনি। আলোচনা সভায় চুক্তি বাস্তবায়নে ১০ দফার ভিত্তিতে অসহযোগ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্য আদিবাসী জনগণ এবং প্রগতিশীল রাজনৈতিক শক্তিদের আহ্বান জানানো হয়।
চুক্তি যথাযথ বাস্তবায়িত না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, আজকে শুধু ক্ষোভের উদযাপন এমনটা নয়, এটা রাষ্ট্রীয় প্রতারণার বিরুদ্ধে সমাবেশ, রাষ্ট্রীয় মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে সমাবেশ। তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্র আদিবাসীদের সাথে যা করছে তা যুদ্ধের নামান্তর।
আদিবাসীদের আন্দোলনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বললেন, আদিবাসীদের লড়াই যদি না থাকতো তবে বাঙ্গালীরা অনেক আগেই উগ্র জাতীয়তাবাদী ও ফ্যাসিস্ট জাতিতে পরিণত হতো।
অন্যান্যদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেজবাহ কামাল তাঁর বক্তব্যে বলেন, শাসকদের আচরণে মনে হয় পার্বত্য চট্টগ্রাম এদেশের উপনিবেশে পরিণত হয়েছে। তিনি চুক্তি বাস্তবায়িত না হওয়ায় সরকারের প্রতি ক্ষোভ জানিয়ে আরও বলেন, চুক্তি বাস্তবায়নের উপর যাদের জীবন মরণ, যাদের খাওয়া পরা নির্ভর করে তাদের কাছে ১৯ বছর অনেক সময়।
আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জাসদের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য নুর আহমেদ বকুল, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক আন্তর্জাতিক কমিশনের সদস্য ব্যারিস্টার সারা হোসেন, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সৌরভ সিকদার, আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সিমন চিসিম প্রমুখ।
আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জনসংহতি সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক শক্তিপদ ত্রিপুরা এবং সঞ্চালনায় ছিলেন জনসংহতি সমিতির তথ্য ও প্রচার বিভাগের সদস্য দীপায়ন খীসা।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *