আদিবাসী অধিকার আন্দোলন কর্মী দীপায়ন খীসা’র মাতার মহাপ্রয়াণ

করোনায় মৃত্যুর মিছিলে যুক্ত হলেন আদিবাসী অধিকার কর্মী দীপায়ন খীসা’র মাতা।

পাহাড়ের অধিকার আন্দোলন কর্মী ও বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের কেন্দ্রীয় তথ্য প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক দীপায়ন খীসার মা মিসেস মন্দাকিনী দেওয়ান বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে করোনা সংক্রমিত হয়ে ভর্তি ছিলেন চট্টগ্রামের সিএমএইচ এ।

গতকাল দীপায়ন খীসা তাঁর নিজস্ব ফেসবুক প্রোফাইলে একটি স্টেটাসের মাধ্যমে জানান যে, আইসিইউ সাপোর্টে থাকা তাঁর করোনা আক্রান্ত মা’র ফুসফুসের সংক্রমণ কিছুটা উন্নতি হলেও গতকাল অবনতি হতে থাকে। মা’য়ের সুস্থতার জন্য প্রতীক্ষার প্রহর আরো বাড়লো বলেও জানান তিনি।

কিন্তু সকল প্রতীক্ষাকে থামিয়ে দিয়ে আজ (২৪ জুলাই) বিকাল নাগাদ চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন মিসেস মন্দাকিনী দেওয়ান। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর।

নিজের মা’য়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে দীপায়ন খীসা তাঁর ফেসবুক প্রোফাইলে লেখেন- ‘মায়ের সাথে শেষ দেখা হলোনা। পাহাড়ের কঠিন জীবন বাস্তবতা।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড.সাদেকা হালিম, ঢাবির নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ড. জোবাইদা নাসরীণ কণা, ঢাবির ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. ঈষাণী চক্রবর্তী, ঢাবির একই বিভাগের অধ্যাপক ড. আকসাদুল আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অনুরাগ চাকমা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বসুমিত্র চাকমা, বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক আব্দুল্লাহ আল কাফী, সিপিবি’র সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, মানবাধিকার কর্মী ইমতিয়াজ মাহমুদ, আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং, বাসদ নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, জনসংহতি সমিতির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মঙ্গল কুমার চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশন, আরডিসি’র সাধারন সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌসী লাকী, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম,পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ, বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ ও গানের দল মাদল এই মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে।

এছাড়াও পাহাড় ও সমতলের আদিবাসী, বাঙ্গালী প্রগতিশীল অনেক ব্যক্তিত্ব এবং আদিবাসী অধিকার তথা প্রান্তিক মানুষের অধিকার নিয়ে কথা বলা প্রগতিশীল আন্দোলনের সাথে জড়িত অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোক জানিয়েছেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *