প্রশ্ন করুন রাষ্ট্রের কাছে, কল্পনা চাকমা কোথায়? ইমতিয়াজ মাহমুদ

কল্পনা চাকমাকে ওরা অপহরণ করেছে আজ কতো বছর হয়ে গেল? ১৯৯৬ সনের সংসদ নির্বাচনের আগের দিন রাতে অপহরণ করা হয় কল্পনা চাকমাকে। ১৯৯৬ থেকে ২০২০, ২৪ বছর হয়ে গেল। এখনো আমরা জানি না কল্পনা চাকমা কোথায় আছে, আদৌ বেঁচে আছে কিনা। মামলা একটা আছে বটে। সরকারের পক্ষ থেকে এই মামলা কয়েকবার শেষ করে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। তদন্তকারী সংস্থাগুলি ফাইনাল রিপোর্ট দিয়েছিল, কোন স্বাক্ষ্য প্রমাণ নাকি পাওয়া যায়নি কারো বিরুদ্ধে। কল্পনার ভাই নারাজি দিয়ে মামলাটা টিকিয়ে রেখেছে বটে, কিন্তু বিচার আদৌ হবে কিনা সে নিয়ে সংশয় তো আছেই।

কে এই কল্পনা চাকমা? আজকের তরুণদের অনেকে নাও জানতে পারেন। কল্পনা চাকমা ছিলান হিল উইম্যান কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক। অতি সাধারণ ঘরের একজন পাহাড়ি মেয়ে। পাহাড়ের মানুষের জন্যে আর নারীমুক্তির জন্যে যে লড়ছিল রাজনৈতিক লড়াই। অতি সাধারণ একজন পাহাড়ি মেয়ে কল্পনাকে অসাধারণ করেছিল পাহাড়ের প্রতি পাহাড়ের মানুষের প্রতি অসাধারণ ভালোবাসা আর পাহাড়ের মানুষের প্রতি চলমান অন্যায়ের বিরুদ্ধে ওর বুকের ভেতরে জ্বলতে থাকা স্ফুলিঙ্গ।

চাকমা ভাষায় সেই কবিতাটা আছে, ‘জ্বলি ন উধিম কিত্তেই’। কবিতা চাকমা লিখেছেন কবিতাটা। বাংলা করলে নাম হয়, জ্বলে উঠব না কেন। কবিতার কথাগুলি এরকম যে, জ্বলে উঠব না কেন, যা ইচ্ছে তাই করে বেড়াবে ওরা, আমাদের বাসভূমিকে বানাবে বিরানভূমি, অরণ্যকে বানাবে মরুভূমি! জ্বলে উঠবার এই স্ফুলিঙ্গটা ছিল ওর বুকে আর সেটাই কল্পনাকে করেছিল অনন্যা। অসাধারণ নেতৃত্বের গুণ ছিল মেয়েটার। এইরকম একজন তরুণ নারীকে ওরা অন্য কোনোভাবে মোকাবেলা করতে পারতো না। গণতান্ত্রিকভাবে ওরা কল্পনাকে রুখতে পারেনি, সভ্য পথে মোকাবেলা করার সাহস ওদের ছিল না বলে বর্বরের মত রাতের অন্ধকারে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছিল কল্পনা চাকমাকে।

১৯৯৬ সনের জুন মাসের সেদিন রাতে কারা অপহরণ করেছিল ওদের কথা সকলেই জানেন। সেনাবাহিনীর একজন লেফটেনেন্টের নাম এসেছে যার বিরুদ্ধে অপহরণে নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগ এসেছে। রাঙ্গামাটি শহর থেকে অনেক দুরে পাহাড়ের এক নিভৃত গ্রাম লাইল্যাঘোনা। সেই গ্রামে রাতের গভীরে কল্পনাকে ওরা যখন অপহরণ করে নিয়ে যায়, কল্পনা চীৎকার করে বলছিল, ‘দাদা মরে বাঁচা’। সেই আর্তচীৎকার আপনি এখনো পাহাড়ের আদামে শুনতে পাবেন। আপনার মনে হবে, আপনি অপদার্থ অশক্ত দাদা, আপনার বোনকে রক্ষা করতে পারেননি।

সেই জন্যে প্রতিবার কল্পনা চাকমার কথা আপনাদের কাছে বলি। বিশেষ করে তরুণদের কাছে। সমতলের বাঙালী তরুণদের কাছে কল্পনা চাকমার কথা বলি। সংখ্যাগুরুর অংশ আপনি, এই অপরাধের দায় আপনারও আছে। মনে রাখবেন, যে অন্যায় আপনার কওম পাহাড়ে করেছে এবং এখনো করছে প্রতিদিন, সেই অন্যায়ের দায় আপনারও আছে আমারও আছে। এই দায় শোধও করতে হবে আপনাকে ও আমাকে।

প্রশ্ন করুন রাষ্ট্রের কাছে, কল্পনা চাকমা কোথায়?

ইমতিয়াজ মাহমুদ, লেখক ও আইনজীবী

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *