এনজিও কিস্তি এবং সুদখোর মহাজনদের অমানবিক আচরণে অতিষ্ঠ হাজং আদিবাসীদের জীবন

অন্তর হাজং; নেত্রকোনাঃ দীর্ঘদিন লকডাউন থাকার কারনে কর্মহীন নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুর উপজেলার অসহায় হাজংরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। পাহাড় থেকে লাকড়ি সংগ্রহ করে, দিনমজুর করে কোনরকমে চলে এদের সংসার! কিন্তু করোনা মহামারীতে চলমান লকডাউনের ফলে সমস্ত কাজ বন্ধ। সরকারি ত্রান ও পর্যাপ্ত না পাওয়ায় অনেকের ঠিকমত খাবারও জুটছে না।

এদিকে সরকার লকডাউন শিথিল এবং অফিস খুলে দেওয়ায় বিভিন্ন এনজিও সংস্থা কিস্তির জন্য দরজায় এসে হাজির। অপরদিকে জানা যায়, অত্যাচারী সুদখোর মহাজন, সুদের টাকার জন্য চাপ প্রয়াগ করাতে হতদরিদ্র হাজং পরিবারগুলো আজ দিশেহারা।

ভুক্তভোগী রুহিন্দ্র হাজং দুর্গাপুর উপজেলার খুজিগড়া গ্রামের দিনমজুর। ৩ বছর আগে শিবগঞ্জের আজিজুল নামের এক সুদ ব্যাবসায়ী থেকে ২৫% হারে ৫ হাজার টাকা নিয়েছিলেন। পুরো টাকা শোধ করতে না পারায় এতদিন তিনি অনিয়মিতভাবে সুদ দিয়ে আসছিলেন। বেশ কিছুদিন ধরে ঐ সুদ ব্যাবসায়ী ৬০ হাজার টাকা দাবি করে টাকা শোধ করতে বিভিন্ন ভাবে চাপ প্রয়োগ করে আসছে।

এর আগেও তিনি সুদে টাকা নিয়ে জমি হারিয়েছেন। বেশ কিছু দিন আগেই আগেকার ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে না পারায় ১২ কাঠা জমি সুদখোরের নামে রিজিস্টি করে দিয়েছেন।

অন্যদিকে, উপজেলার বিপিনগঞ্জ ব্রাঞ্চ আশা সমিতির মাঠ কর্মী কিস্তি দিতে চাপ প্রয়োগ করছেন রীতিমত।

দুর্গাপুরে এরকম আরও অন্তত ১০ টি ভুক্তভোগী পরিবার এনজিও কিস্তি ও সুদখোরদের অমানবিক কার্যকলাপে অতিষ্ট বলে জানিয়েছেন স্থানীয় হাজং আদিবাসীরা।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *