স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর ঐক্য পরিষদের স্মারকলিপি

করোনাভাইরাসে সৃষ্ট এই দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতেও দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক দুর্বৃত্তরা হামলা, নির্যাতন ইত্যাদি অব্যাহত থাকায় বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে গতকাল বিকেলে ই-মেইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর বরাবরে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

এই স্মারকলিপির অনুলিপি নিচে দেওয়া হলোঃ-

জনাব আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল
মাননীয় মন্ত্রী
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
ঢাকা।

স্মারকলিপি

মাননীয় মন্ত্রী,
ধর্মীয় বৈষম্যবিরোধী মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে আন্তরিক শ্রদ্ধাভিবাদন গ্রহণ করবেন।

করোনাভাইরাসে সৃষ্ট এ অমানবিক দুর্যোগের মুহূর্তেও আপনার কাছে ই-মেইলে এ স্মারকলিপি প্রদান করতে হলো বলে আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

মাননীয় মন্ত্রী,
বর্তমানের এ দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতি মোকাবেলায় আপনার মন্ত্রণালয়ের অধিনস্থ আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী কর্তৃপক্ষ যে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করে চলেছে তা গোটা জাতি স্বকৃতজ্ঞচিত্তে প্রত্যক্ষ করছে।

মাননীয় মন্ত্রী,
এতদ্সত্তে¡ও অতিব দুঃখ ও পরিতাপের সাথে আপনাকে জানাতে চাই যে, এক শ্রেণীর স্বার্থান্ধ সাম্প্রদায়িক চক্র করোনাভাইরাসের মতো দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতেও ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের বাড়ীঘরে হামলা ও জখম, তাদের জমি জবরদখল ও জবরদখলের অপচেষ্টা, ধর্ম অবমাননার মিথ্যা গুজব রটিয়ে নিরীহ যুবকদের পুলিশকে দিয়ে গ্রেফতার, নারী ধর্ষণ, জোরপূর্বক ধর্মান্তরকরণ, বিভিন্ন সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ও অপপ্রচার, মন্দিরে হামলা করে এর পবিত্রতা ক্ষুন্ন ইত্যাদি অমানবিক ও সাম্প্রদায়িক কার্যকলাপ অব্যাহত রেখে সারাদেশে সংখ্যালঘু জনমনে ভয়ভীতি স ারে সচেষ্ট হয়েছে। আমাদের বিশ্বাস, এসব দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে এখনই কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে এরা ভবিষ্যতে আরও মাথাচাড়া দিয়ে উঠবে এবং করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে সামাজিক শান্তি-শৃংখলা বিঘœ সৃষ্টিতে অধিকতর তৎপর হয়ে সরকারের ভাবমূর্তিই কেবল ক্ষুন্ন করবে না, বর্তমান পরিস্থিতিকে আরও জটিল করে তুলবে। মূলতঃ এ বিষয়ে স্বহৃদয় দৃষ্টি আকর্ষণের নিমিত্তে আপনার বরাবরে অত্র স্মারকলিপি প্রদান করলাম।

এ স্মারকলিপির সাথে ইতোমধ্যে প্রাপ্ত বেশ কয়েকটি ঘটনার সংক্ষিপ্তসার সংযোজিত করে দিলাম আপনার স্বহৃদয় অবগতির জন্যে।

আশাকরি, বিদ্যমান বাস্তবতায় ই-মেইলে প্রেরিত এ স্মারকলিপি আপনি আন্তরিকতার সাথে গ্রহণ করবেন এবং সামাজিক শান্তি ও শৃংখলা রক্ষায় সাম্প্রদায়িক দৃর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ ও ভবিষ্যতেও তা অক্ষুন্ন রেখে বাধিত করবেন।
পরিশেষে আপনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘজীবন কামনা করছি।

আন্তরিক ধন্যবাদান্তে-

(রাণা দাশগুপ্ত)
সাধারণ সম্পাদক
বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ
মোবাইলঃ ০১৭১২-২৭৪৫৩২
ঊ-সধরষ: ফধংমঁঢ়ঃধৎধহধ@ুধযড়ড়.পড়স

অনুলিপি: স্বরাষ্ট্র সচিব (জননিরাপত্তা), স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা।

করোনাভাইরাসের সুযোগ নিয়ে সাম্প্রদায়িক দুর্বৃত্তদল কত্র্ক দেশব্যাপী সংঘটিত ঘটনাবলীর সংক্ষিপ্তসার (প্রাথমিক তালিকা):

১। জেলা: সাতক্ষীরা
সাতক্ষীরায় ব্যবসায়ী সুবোল চক্রবর্তীকে কলেমা পড়ে মুসলিম না হলে ভারতে চলে যেতে হুমকি
সাতক্ষীরা জেলার অন্তর্গত তালা উপজেলার নগরঘাটায় কালিপদ চক্রবর্তীর ছেলে মুদি ব্যবসায়ী সুবোল চক্রবর্তীকে গত ১৩/০৪/২০২০ ইং তারিখ সোমবার প্রকাশ্যে সবার সামনে মারধর ও কলেমা না পড়লে ভারতে তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে দক্ষিণ নগরঘাটা গ্রামের আব্দুর রহিম সরদারের ছেলে দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মোস্তাক। সে হুমকি দিয়ে বলে, শালা মালায়ন হয় কলেমা পড় তা না হলে ভারতে চলে যা। তার ভয়ে ভিত হয়ে পড়েছে নগরঘাটার শত শত সংখ্যালঘু পরিবার। ভুক্তভোগী সুবোল চক্রবর্তী নগরঘাটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান লিপু-কে জানালে সে কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় পাটকেলঘাটা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

২। জেলা: বাগেরহাট
বাগেরহাট সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্ত:সত্তা গৃহবধূ ও শিশুসহ পাঁচ জনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত
বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ করতে গত ২৪/০৪/২০২০ ইং তারিখ সকাল বেলায় বাগেরহাট জেলার মোংলা থানার অন্তর্গত চিলা ইউনিয়নের গোলেরডাঙ্গা গ্রামের অনিল বালার পরিবারের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালায় পার্শ্ববর্তী বাঁশতলা গ্রামের প্রভাবশালী সন্ত্রাসী-ভূমিদস্যু আ: ছালামের নেতৃত্বে একদল ভূমিদস্যু। এতে অন্ত:সত্তা গৃহবধূ সুমিতা বালা, অনিল বালা, মায়া বালা, সরলা গোলদার, শিশু পুটু গোলদার ও শংকর গোলদারসহ ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছে। পরে তাদের এলাকাবাসী উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করেছে। অন্ত:সত্তা গৃহবধূ সুমিতা বালা ও অনিল বালার অবস্থা গুরুতর বলে জানায় কর্তব্যরত চিকিৎসক। এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

৩। জেলা: মাগুরা
বিএনপি নেতা কর্তৃক বাজার রাধানগর গ্রামের সুকান্ত চক্রবর্তীর পৈত্রিক জমি জবরদখলের চেষ্টা ও ভাংচুর
গত ০৭/০৪/২০২০ ইং তারিখ দুপুর বেলায় বিএনপি নেতা মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে তার আপন সহোদর ভাই জাফর, ফিরোজসহ আরো ১০-১৫ জন সন্ত্রাসী-ভূমিদস্যু দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলা চালিয়ে মাগুরা জেলার মহম্মদপুর থানার অন্তর্গত বাজার রাধানগর গ্রামের সুকান্ত চক্রবর্তীর পৈত্রিক জমির উপর নির্মাণাধীন স্থাপনা সন্ত্রাসীরা হাতুড়ী, লোহার শাবল দিয়ে ভাংচুর করে মাটির সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। এ সময় সুকান্ত চক্রবর্তীসহ পরিবারের অন্যরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তাদের খুন করার হুমকি দেয় এবং আর কোনদিন জমির কাছে আসলে পরিবারসহ ভারতে পাঠিয়ে দেওয়ারও হুমকি দেয় সন্ত্রাসীরা। সুকান্ত চক্রবর্তীর পৈত্রিক শেষ সম্বল ৬০ শতাংশ জমির মধ্যে ১১ শতাংশ জমি ইতোপূর্বে জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছে মিজানুর রহমান। বর্তমানে তার মালিকানাধীন অবশিষ্ট ৪৯ শতাংশ জমি জবরদখল করার জন্যে উটেপড়ে লেগেছে এই বিএনপি নেতা। মিজানুর রহমান মহম্মদপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের পাঁচ নাম্বার ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি। এ ঘটনায় ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

৪। জেলা: জামালপুর
বহু পুরানো শিব মন্দিরের বেদী ভেঙ্গে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিয়ে দখল করে নিয়েছে পুরো দেবোত্তর সম্পত্তি
জামালপুর জেলার মেলান্দহ থানার অন্তর্গত ঢালুয়াবারি গ্রামে গত ২৩/০৪/২০২০ ইং তারিখ বৃহস্পতিবার সারাদেশে লক ডাউনের সুযোগ নিয়ে মৃত সেকান্দর খাঁ-র পুত্র নুরুল ইসলাম খাঁ-র নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত একটি বহু পুরানো শিব মন্দিরের বেদী সাবল দিয়ে ভেঙ্গে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিয়ে দখল করে নিয়েছে পুরো দেবোত্তর সম্পত্তি।

৫। জেলা: জয়পুরহাট
মন্দিরে জুয়া খেলতে বাধা দেওয়ায় বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও মারধর
জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর পৌর এলাকার পারঘাটী মন্দিরে জুয়া খেলতে বাধা দেওয়ায় বেশ কয়েকটি ধর্মীয় সংখ্যালঘু বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও লোকজনদের মারধর করেছে সন্ত্রাসীরা। গত ২০/০৪/২০২০ ইং তারিখ সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে স্থানীয় কয়েকজন সন্ত্রাসী যুবক ওই মন্দিরে জুয়া খেলছিল। এসময় মন্দিরের পাশে থাকা হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন মন্দিরে জুয়া খেলা বন্ধ করতে বললে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও তাদের মারধর করেছে। এ ঘটনার পরপরই পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার কথা বলেছে। এ ঘটনায় ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

৬। জেলা: রাজশাহী
উত্যক্তে অতিষ্ট হয়ে শেষমেষ স্কুলছাত্রী অষ্টমীর আত্মহত্যা
রাজশাহীর মোহনপুর থানার অন্তর্গত ঘাসিগ্রামের নিমাই সরকারের কন্যা, নবম শ্রেণীর ছাত্রী কুমারী অষ্টমী সরকার ঘাসিগ্রাম স্কুলের সহকারী শিক্ষক শরিরত আলীর সহায়তায় পাশের গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে গোলাম মোস্তফা ও তার সহযোগীদের উত্যক্তে অতিষ্ট হয়ে গত ১৬/০৪/২০২০ ইং তারিখে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মতহ্যা করেছে। ইতোপূর্বেও গত বছর ১১ নভেম্বর প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় গোলাম মোস্তফা ও তার সহযোগীরা অষ্টমীকে অপহরণ করেছিল। খবর পেয়ে ওইদিনই পুলিশ অষ্টমীকে উদ্ধার ও অপহরণকারী গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়। কিন্তু জামিনে বেরিয়ে আবারও তাকে উত্যক্ত করতে শুরু করে। শেষমেষ আর সহ্য করতে পারেনি অষ্টমী, বেছে নেয় আত্মতহ্যার পথ।

৭। জেলা: চট্টগ্রাম
সাতকানিয়ায় লকডাউনের মধ্যেই ৩০টি হিন্দু পরিবারের ওপর হামলা: দেশত্যাগের হুমকি
চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের শুক্লাদাস পাড়ায় গত ২১/০৪/২০২০ ইং তারিখ স্থানীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী মো: এটিএম, মো: রাশেদ, মো: আব্দুল্লাহ্, জিয়া উদ্দিন, হাবিবুল্লাহ্ ও মুসা উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী স্থানীয় প্রভাবশালী এক নেতার নির্দেশে দেশের ক্রান্তিলগ্নে লকডাউন উপেক্ষা করে ৩০টি সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবারের ওপর সন্ত্রাসীরা অতর্কিতে হামলা চালিয়েছে এবং তাদেরকে দেশত্যাগের হুমকি দিয়েছে। এতে নারী-পুরুষসহ কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। গুরুতর অবস্থায় বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে ভীতি ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

৮। জেলা: কুড়িগ্রাম
ধর্ম অবমাননার গুজব রটিয়ে কুড়িগ্রামে অনার্সের ছাত্র পরিতোষ-এর উপর হামলা পরে পুলিশ এসে গ্রেফতার
কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার কালিগঞ্জ ইউনিয়নের সাতানী হাইল্লা গ্রামের পূর্ণ চন্দ্র সরকারের ছেলে, অনার্স পড়–য়া, পরিতোষ কুমার সরকারকে গত ২১/০৪/২০২০ ইং তারিখে ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফেসবুকে বাজে মন্তব্য ও ধর্ম অবমাননার গুজব রটিয়ে তার ওপর হামলা ও পরে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে স্থানীয় লোকজন। এ ঘটনায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

৯। জেলা: চাঁদপুর
করোনা নামক মহামারীর মধ্যে কচুয়ায় হিন্দু নির্যাতন
গত ১৭/০৪/২০২০ ইং তারিখ চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার ৯নং ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামের শীতল সরকার ও তার ভাই হীরাপদ সরকারকে উপর্যুপরি মারধর করে গুরুতর আহত করেছে প্রতিবেশী মুন্সী বাড়ীর সন্ত্রাসী ছেলে রাকিব হোসেন। তাদের ডাক চিৎকারে বাড়ী থেকে অন্যান্য লোকজন এসে দ্রæত তাদের স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করান। দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্নভাবে সন্ত্রাসী রাকিবের নেতৃত্বে রিপন, বক্কর, হাসান, মকবুল মাহবুব, মাসুমসহ ১০-১২ জনের একটি সন্ত্রাসী গ্রæপ এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে। এ ঘটনায় এলাকায় তীব্র ক্ষোপ ও উত্তেজান বিরাজ করছে।

১০। জেলা: যশোর
বেনাপোলে সংখ্যালঘু নারীর শ্লীলতাহানী; আটক আ’লীগ নেতা
যশোর জেলার বেনাপোল পৌরসভার ছোটআঁচড়া গ্রামের রবীন সরকারের স্ত্রী রিতা সরকারকে গত ১৬/০৪/২০২০ ইং তারিখ রাতে শ্লীলতাহানী করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বাবু সরদার, পিতা- মৃত আকবর আলী। রিতা সরকার প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে রাত ১২টার সময় ঘরের বাহিরে বাথরুমে গেলে পূর্বে থেকে ওঁতপেতে থাকা বাবু সরদার মদ্যপ অবস্থায় তাকে জড়িয়ে ধরে টানাটানি করে। এতে রিতা সরকার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখমপ্রাপ্ত হয়। বাবু সরদার খারাপ কাজের উদ্দেশ্যে তাকে টানাটানি করে। বাবু সরদারকে পরে পুলিশ আটক করলে স্থানীয় ক্ষমতাধর নেতারা তার জামিনের ব্যবস্থা করে। বর্তমানে আসামী গ্রামে ফিরে এসে ভুক্তভোগীদের হুমকির মধ্যে রেখেছে। এখন তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে বলে জানা যায়।

১১। জেলা: সাতক্ষীরা
সাতক্ষীরায় সংখ্যালঘু পরিবারের ওপর বর্বরোচিত হামলা, মৎস্যঘের দখল
সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার ৬নং রমজাননগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ভেটখালী গ্রামের বরেন্দ্র কৃষ্ণ মন্ডল ও তার স্ত্রী নীলিমা রানী মন্ডলকে গত ২৪/০৪/২০২০ ইং তারিখ সকাল আনুমানিক ৮টার সময় একই গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মো: সুন্নত আলী গাজী ও তার ক্যাডার বাহিনী মো: ইসমাইল হোসেন, মো: রাজ গাজী, মো: আজিম গাজী ব্যাপকভাবে মারধর করে বরেন্দ্র কৃষ্ণ মন্ডলের বাড়ির পুকুর দখল করে নিয়েছে। এতে তারা বাধা দিলে তাদের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালায় ও বাড়ী-ঘর ভাংচুর করে। বর্তমানে বরেন্দ্র কৃষ্ণ মন্ডল শ্যামনগর সদর হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

১২। জেলা: ব্রাহ্মণবাড়ীয়া
নাসিরনগরে সুধাংশু দাসের জমি ও বাড়ী জবরদখল
গত ১৩/০৪/২০২০ ইং তারিখ দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার নাসিরপুর গ্রামের হিন্দু পল্লীতে হামলা চালিয়ে সুধাংশু দাসের জমি ও বাড়ী জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছে স্থানীয় সন্ত্রাসী ইছা মিয়া গংরা। এতে স্থানীয় ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

১৩। জেলা: ফরিদপুর
ফরিদপুরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার সুরেশ পালের পরিবার
গত ১২/০৪/২০২০ ইং তারিখ ফরিদপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের মল্লিকপুরের পালপাড়ায় সুরেশ পালের বাড়ীতে এলাকার প্রভাবশালী সন্ত্রাসী সলেমান বেপারীর নেতৃত্বে মো: মিজান বেপারী, মো: রানা বেপারী, মো: হৃদয় বেপারী ও মো: সুজায়েতসহ একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়েছে। এতে সুরেশ পাল, তার স্ত্রী সবিতা পাল, ছেলে সমীর পাল, তার ভাই জগদীশ পাল, তার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী সুস্মিতা পাল মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নিচ্ছে না। এমতাবস্থায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবার নিরাপত্তহীনতায় ভুগছে।

১৪। জেলা: কক্সবাজার
কক্সবাজারে শিব মন্দিরের জমিসহ সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়ী দখলের চেষ্টা ও হামলা
কক্সবাজার পৌরসভাস্থ বিডিআর ক্যাম্প অধীন ৬নং ওয়ার্ডে দক্ষিণ সাত্বিকা পল্লী হিন্দু পাড়া সাহাগলি রোডে অবস্থিত গোপাল দাশের বাড়ীতে সার্বজনীন শিব মন্দিরের জমি ও বসতবাড়ী দখলের উদ্দেশ্যে গত ২২/০৪/২০২০ ইং তারিখে হামলা চালায় প্রতিবেশী প্রফেসার হোসেন ও তার ছোট ভাই লিয়াকতসহ তাদের দলবল। এই সময় তারা মন্দিরের সামনে গিয়ে দখল সীমানা খুঁটি দিয়ে দখল দাবি করে, শুধু তাই নয় সংখ্যালঘু পরিবারটিকে হুমকি প্রদান করে। বর্তমানে সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবারটি আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।

১৫। জেলা: পটুয়াখালী
লকডাউনের সুযোগে কলাপাড়ায় সংখ্যালঘুর জমি দখল
পটুয়াখালী জেলার মহিপুর থানার অন্তর্গত সদর ইউনিয়নের পুরান মহিপুর গ্রামের সংখ্যালঘু নারায়ণ সরকারের ৬০ বছরের ভোগদখলীয় ৩০ শতাংশ জমি গত ০৪/০৪/২০২০ ইং তারিখ একই গ্রামের ভূমিদস্যু, সন্ত্রাসী রায়হান মীর, ফারুক মৃধা, কালাম চৌকিদার, জাহাঙ্গীর ও খলিলের নেতৃত্বে একদল ভূমিদস্যু অবৈধভাবে জোরপূর্বক দখল করে সেখানে ঘর নির্মাণ করেছে। বর্তমানে ভূমিদস্যু চক্রটি ওই সংখ্যালঘু পরিবারকে এলাকা ছাড়ার হুমকি দিচ্ছে।

১৬। জেলা: বরিশাল
আগৈলঝাড়ায় সংখ্যালঘু পরিবারের ওপর হামলা
বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া থানার অন্তর্গত পশ্চিম সুজনকাঠি (মল্লিক বাড়ী) গ্রামের মৃত রমেশ চন্দ্র কর-এর স্ত্রী অঞ্জলী করের বাড়ীতে গত ১৬/০৪/২০২০ ইং তারিখে এলাকার মো: হারুন মল্লিকের দুই সন্ত্রাসী পুত্র মো: হাসান মল্লিক ও মো: হাবিব মল্লিক-এর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে অঞ্জলী কর, তার পুত্রবধূ ঝর্ণা কর, পুত্র অমিয় কর ও প্রভাত করকে এলোপাথারী কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে ও ঘরের মূল্যবান জিনিষপত্র লূট করে। এসময় ঝর্ণা করকে জোরপূর্বক তুলে নিতে চাইলে সংখ্যালঘু পরিবারটির ডাকচিৎকারে এলাকার লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে। আহতদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমতাবস্থায় পুণরায় তাদের ওপর হামলা হতে পারে এই ভয়ে তারা আতঙ্কে রয়েছে।

১৭। জেলা: সিলেট
হিন্দুদের ত্রাণ দিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের আহŸান
সিলেটে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ত্রাণ সহায়তা দিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের আহŸান জানিয়েছে ‘বাংলা এইড’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রেক্ষিতে সঙ্কটে পড়া শ্রীমঙ্গলের সদর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের ১০০ পরিবারের (৮০টি মুসলিম ও ২০টি হিন্দু পরিবার) মধ্যে গত ২২ এপ্রিল ত্রাণ বিতরণ করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি। ত্রাণ বিতরণ করার সময় হিন্দু পরিবারগুলোর উদ্দেশ্যে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা বলে, ‘ভারতে হিন্দুরা মুসলমানদের নির্যাতন করলেও এখানে আমরা হিন্দুদেরও ত্রাণ দিচ্ছি। এখন কেউ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলে তাকে আমরা স্বাগত জানাই।’ তারা আরো বলে, ‘যদি আপনাদের কাছে ইসলাম ধর্ম রাইট লাগে তবে আপনারা ইসলাম ধর্মে আসেন। আমরা না করবো না।’ এ ঘটনায় সারা দেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

১৮। জেলা: নীলফামারী
প্রতিমা রানী রায়কে অপহরণ ও পরে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিতকরণ
নীলফামারী জেলার ডিমলা থানার ধনেশ্বর রায়ের কন্যা প্রতিমা রানী রায়কে গত ১৫/০৪/২০২০ ইং তারিখ সন্ধ্যা ৭টার সময় মন্দিরে পূজা দিয়ে বাড়ী ফেরার পথে মামুন ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, মাসুদ রানা, রাশেদ ইসলাম, মশিউর রহমান জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং পরে তাকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্মে দিক্ষীত করে কাবিননামা তৈরী করেছে। মেয়েটির নাম পরিবর্তন করে নাম রাখা হয়েছে মোসা: খাদিজাতুন তৌহিরা।

১৯। জেলা: বগুড়া
সারিয়াকান্দির গণকপাড়া গ্রামে হিন্দু রবিদাসের বাড়ীতে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ
বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলার অন্তর্গত গণকপাড়া গ্রামের মৃত শিউলাল রবিদাসের ছেলে সুমল চন্দ্র রবিদাসের বসতবাড়ী ও তার সেলুন দোকান ঘরে গত ২৫/০৪/২০২০ ইং তারিখ সন্ধ্যা বেলায় স্থানীয় ইউ.পি সদস্য মো: তরিকুল মেম্বার-এর নেতৃত্বে ৫০/৬০ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর, মারধর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে। হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে, তাদের মধ্যে সুমল রবিদাসের ছোট ভাইয়ের গর্ভবতী বউ গুরুতর অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছে। বর্তমানে পরিবারটি মানবেতর জীবনযাপন করছে। এদিকে মেম্বার তরিকুলসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনী প্রতিনিয়ত তাদের পরিবারসহ হত্যা এবং দেশ ত্যাগের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও আতঙ্ক বিরাজ করছে।

২০। জেলা: নোয়াখালী
পূর্বপুরুষের দিঘী দখলের উদ্দেশ্যে এলাকার সন্ত্রাসী বাবুলের নেতৃত্বে নরেন্দ্র মোক্তারের বাড়ীতে হামলা
গত ২৭/০৪/২০২০ ইং তারিখ দুপুর বেলায় এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী মো: বাবুল উল্লা ও তার সন্ত্রাসী দুই পুত্র জেসান ও বিপ্লবের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জনের একটি সন্ত্রাসী দল নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত জিরাতলী ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের নরেন্দ্র মোক্তারের বাড়ীতে হামলা চালিয়েছে। উক্ত হামলায় প্রতীক পাল, উত্তম পাল ও চন্দন পাল গুরুতর আহত হয়ে বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছে। তাদের পূর্বপুরুষের দিঘী দখলের উদ্দেশ্যেই সন্ত্রাসী বাবুল এই হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও আতঙ্ক বিরাজ করছে।

২১। জেলা: ল²ীপুর
অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতকারী কর্তৃক শ্রী শ্রী রক্ষাকারী মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর
ল²ীপুর জেলার সদর থানার অন্তর্গত শাঁখারিপাড়া ৫নং ওয়ার্ডের শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দিরে গত ২৫/০৪/২০২০ ইং তারিখ রাতের আঁধারে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতকারীরা মন্দিরের লোহার গেইট ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে ২টি প্রতিমা ভাংচুর করেছে। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘু সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

২২। জেলা: গাইবান্ধা
অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতকারী কর্তৃক শ্রী শ্রী কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর
গাইবন্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ছাপড়হাটি ইউনিয়নের উত্তর মরুয়া (বকুলতলা) গ্রামে শ্রী শ্রী কালী মন্দিরে গত ২৪/০৪/২০২০ ইং তারিখ রাতের আঁধারে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতকারীরা মন্দিরের তালা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে প্রতিমা ভাংচুর করেছে। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘু সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

২৩। জেলা: ফরিদপুর
সন্ত্রাসী মো: শাহিন শেখের নেতৃত্বে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ
গত ১১/০৪/২০২০ ইং তারিখ বিকেল বেলায় এলাকার সন্ত্রাসী মো: শাহিন শেখের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী রাজীব চৌধুরী ওরফে বুলেট শেখ, মো: সজিব শেখ, মো: ইব্রাহিম মোল্লা ওরফে ডাকাত মোল্লা, মো: মনির চোরা, মো: কামাল শেখ, মো: রফি শেখ ওরফে বোমরাসহ ২০-২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা থানার অন্তর্গত টিটুরকান্দি গ্রামে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা চালিয়ে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে মারধর, বাড়ীঘর ভাংচুর, লুটপাট, মন্দির ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। হামলায় অসিত কুমার সরকার, অন্তর বিশ্বাস, শ্রীমতি মঞ্জু সরকার, অরুপ বিশ্বাস, মনোজ বিশ্বাস, শম্ভু সরকার, গোপাল সরকার, সরুপ সরকার, মহাদেব বিশ্বাস ও বিধান বিশ্বাস গুরুতরভাবে আহত হয়েছে। আহতরা বর্তমানে আলফাডাঙ্গা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সন্ত্রাসীরা অসিত কুমার সরকারের দোকানের ক্যাশ বাক্সে রক্ষিত একলক্ষ নগদ টাকা ও প্রায় দেড়লক্ষ টাকার আসবাবপত্র লুট করে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা অসিত সরকারের নিকট পাঁচ লক্ষ টাকা চাঁদা চাইলে তিনি না দিতে অস্বীকার করায় সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালায়। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘু সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

২৪। জেলা: বরিশাল
এলাকার সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু সেরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা
বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার মালিকান্দা গ্রামে গত ৩০/০৩/২০২০ ইং তারিখ প্রকাশ্য দিবালোকে এলাকার সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু মো: সেরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী মো: পনির মিয়া, মো: আনোয়ার হোসাইন, মো: দেলোয়ার হোসেন, মো: এয়ার হোসাইন, মো: বাবু খান ও মো: রেফাতুল্লাহ্সহ আরও অজ্ঞাতনামা ৪০-৫০ জনের একটি সন্ত্রাসী দল অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা চালিয়েছে। সন্ত্রাসীরা নারী-পুরুষ-শিশু নির্বিশেষে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে এবং ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করেছে। আহতরা হলেন, মৃণাল বিশ্বাস, ননি গোপাল বিশ্বাস, মৃন্ময় বিশ্বাস, পরিমল বিশ্বাস, সুনিল বিশ্বাস, লিপি বিশ্বাস, আরতি বিশ্বাস, অনিল বিশ্বাস ও কবিতা বিশ্বাস। আহতরা বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা ও নির্যাতন-নিপীড়ন চালিয়ে দেশত্যাগে বাধ্য করে তাদের জায়গা-জমি দখল করাই এ হামলার উদ্দেশ্য। বর্তমানে সন্ত্রাসীদের ভয়ে এলাকার বহু লোক গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র মানবেতর জীবন-যাপন করছে।

২৫। জেলা: গাইবান্ধা
সন্ত্রাসী মো: লিখন সরকার কর্তৃক সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী অপহরণ
গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী থানার অন্তর্গত হিজলগাড়ি গ্রামের গোপাল চন্দ্র রায়ের মেয়ে, সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী কুমারী অন্তরা রানীকে গত ০৪/০১/২০২০ ইং তারিখ তার মাসীর বাড়ী বগুড়ার ধুনট হইতে বাসযোগে বাড়ী ফেরার পথে পলাশবাড়ী থানার নুনিয়াগাড়ী নামক স্থান হইতে দুপুর বেলায় স্থানীয় মোহাম্মদ আলীর সন্ত্রাসী ছেলে মো: লিখন সরকার, মোছা: নূরজাহান বেগম, মো: শাহিন মিয়া, মোছা: রেণু বেগমসহ আরো অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের সহযোগীতায় জোরপূর্বক অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গেছে। সন্ত্রাসী লিখন সরকার মেয়েটিকে দীর্ঘদিন যাবৎ উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এ ব্যাপারে স্থানীয় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হইলেও এখনও পর্যন্ত অপহৃত মেয়েটিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয় নাই। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘু সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

২৬। জেলা: ঢাকা
স্থানীয় সন্ত্রাসী মো: শিফাত কর্তৃক নাবালিকা মেয়ে অপহরণ
গত ২২/০৪/২০২০ ইং তারিখ স্থানীয় মো: জামালের সন্ত্রাসী ছেলে মো: শিফাত ঢাকার ডেমরা থানার বাঁশেরপুল সাধুর মাঠ এলাকার স্বপন চন্দ্র পালের ১৪ বছরের নাবালিকা মেয়ে দিপা রানী পালকে জোরপূর্বক অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। যদিও সন্ত্রাসীরা পরের দিন গত ২৩/০৪/২০২০ ইং তারিখ রাতের বেলায় অপহৃত মেয়েটিকে নিজ বাড়ীতে ফেরত দিয়ে গেছে। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘু সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

২৭। জেলা: পটুয়াখালী
দুস্কৃতকারী কর্তৃক মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর
পটুয়াখালী জেলার দশমিনা উপজেলার অন্তর্গত শান্তিপুর ইউনিয়নের জাফরাবাদ গ্রামের হরলাল চক্রবর্তীর বাড়ীর সার্বজনীন শ্রী শ্রী সত্যনারায়ণ কালী মন্দির ও শ্রী শ্রী কালী মন্দিরে গত ০৮/০৪/২০২০ ইং তারিখ রাতের আধারে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতকারীরা হামলা চালিয়ে মন্দির দু’টিতে রক্ষিত প্রতিমা ভাংচুর করেছে। এ ঘটনায় এলাকার ধর্মীয় সংখ্যালঘু সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *