গণস্বাস্থ্যের কিট সরকার গ্রহণ না করায় সিপিবির নিন্দা ও ক্ষোভ

করোনাভাইরাস শনাক্তকরণে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষকদের উদ্ভাবিত কিট পরীক্ষার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে গ্রহণ না করায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) অনলাইনে অনুষ্ঠিত ‘কোভিড-১৯ রেসপন্স টিমে’র এক সভায় গণস্বাস্থ্যের কিট নিয়ে টালবাহানা বন্ধের দাবি জানিয়ে সিপিবির নেতৃবৃন্দ বলেছেন, বর্তমান মহাসংকটকালে গবেষণার ক্ষেত্রে সরকারিভাবে যেখানে উল্লেখযোগ্য কিছুই হচ্ছে না, সেখানে গণস্বাস্থ্যের কিট আটকে দেয়ার বিষয়টি ‘ভাত দেয়ার মুরোদ নেই, কিল মারার গোসাই’ বলেই বিবেচিত হবে। এই ঘটনা দেশীয় গবেষকদের গবেষণাকাজে নিরুৎসাহিত করবে।

সভায় নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, বর্তমান মহাসংকটকালে করোনাভাইরাস শনাক্তকরণে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র যে গবেষণা চালিয়েছে, তা দেশবাসীর কাছে ইতিমধ্যেই ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। সরকারকেই উদ্যোগী হয়ে অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে এই কিটের কার্যকরিতা যথাযথভাবে পরীক্ষা করে কিট উন্মুক্ত করার ব্যবস্থা করা উচিত ছিল। কিন্তু তা না করে উল্টো আইনের মারপ্যাঁচ দেখিয়ে পরীক্ষার জন্য কিট গ্রহণই করা হচ্ছে না। এমনকি কেউ কেউ পরীক্ষার আগেই এই কিটের কার্যকরিতা সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, গণস্বাস্থ্য উদ্ভাবিত কিট কতটা কার্যকর কিংবা আদৌ কার্যকর কি না, তা পরীক্ষার মাধ্যমেই নিশ্চিত হতে হবে। এজন্য উদার ও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে সরকারকে এ ব্যাপারে দ্রুতই উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় অংশ নেন সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, সহকারী সাধারণ সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, প্রেসিডিয়াম সদস্য রফিকুজ্জামান লায়েক, মিহির ঘোষ, আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, অনিরুদ্ধ দাশ অঞ্জন, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক আহসান হাবিব লাবলু, রুহিন হোসেন প্রিন্স, জলি তালুকদার, কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্যক্ষ মাহবুবুল আলম, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ডা. ফজলুর রহমান।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *