সেনা শাসনের কারণে রাষ্টের আইনগুলো পার্বত্য চট্টগ্রামে অকার্যকর – সন্তু লারমা

পার্বত্য চট্টগ্রামে সর্বক্ষেত্রে সেনা শাসন বজায় আছে। ফলে এখানে আইনের প্রতিষ্ঠা হয় না। জনকল্যাণের জন্য রাষ্টের আইনগুলো কার্যকর হতে পারে না। সেনা শাসন থাকায় পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ জেলা পরিষদ আইনগুলো অকার্যকর। পার্বত্য চুক্তির পরও এখানে সেনা শাসন বজায় রাখা হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে অস্থায়ী সেনা ক্যাম্পগুলো প্রত্যাহার করা হয়নি। বলেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় ওরফে সন্তু লারমা।
শনিবার সকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সভাকক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯শ সালের ইংরেজী ও বাংলা সংস্করণের প্রকাশনার উন্মোচন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সন্তু লারমা।
সন্তু লারমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের সেনা শাসন বজায় থাকায় এখানে আইনের শাসন নেই। সেনা শাসনের কাছে সবাই অসহায়। কারোর কিছু করার নেই।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগের বিচারপতি মো. নিজামুল হক, বিশেষ অতিথি ছিলেন হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের মানবাধিকার বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট জেড. আই. পান্না খান, চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়, রাঙামাটি জেলা ও দায়রা জজ মো. কাউসার আহমেদ, রাঙামাটি মূখ্য বিচারিক হাকিম সামস্‌ উদ্দিন খালেদ, এএলআরডির নির্বাহী পরিচালক শামসুল হুদা, রাঙামাটি জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি প্রতিম রায় পাম্পু, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটির সভাপতি গৌতম দেওয়ান।
অনুষ্ঠানে তিন পার্বত্য জেলার সিনিয়র আইনজীবী, শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, হেডম্যান নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *