গ্রামীণফোনের ১২৫৮০ কোটি টাকা আদায়ে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

গ্রামীণফোনের কাছে ১২ হাজার ৫শ ৮০ কোটি টাকা দাবি করে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন-বিটিআরসির দেওয়া চিঠির কার্যকারিতার ওপর দুই মাসের অন্তবর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি একেএম আব্দুল হাকিম ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। আদালতে গ্রামীণফোনের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকটে এ এম আমিন উদ্দিন, শরীফ ভূঁইয়া ও তানিম হোসেইন শাওন। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জাহাঙ্গীর আলম।

এরই সাথে গ্রামীনফোনের আবেদনের ওপর আগামী ৫ নভেম্বর শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। ফলে এ সময়ের মধ্যে ওই অর্থ আদায় করা যাবে না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

২৭টি খাতে ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা দাবি করে গ্রামীণফোনকে গত ২ এপ্রিল চিঠি দেয় বিটিআরসি। এই চিঠির যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গ্রামীণফোন নিম্ন আদালতে একটি মামলা করে। এরপর গত ২৮ আগস্ট নিম্ন আদালত গ্রামীণফোনের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন নামঞ্জুর করেন। পরে এ নিয়ে হাইকোর্টে আপিল করে গ্রামীণফোন, যার গ্রহণযোগ্যতার ওপর আজ এই শুনানি হয়।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *