কলাপাড়ায় রাখাইন নারীর জমি দখলের চেষ্টা ও মারধরের অভিযোগ

অন্তত ৫০ বছরের দখলে থাকা ভোগ দখলীয় জমিতে প্রতি বছরের মতো এ বছরও রোপনের কাজ শেষ করেছেন বয়োবৃদ্ধা মাজাফ্রু রাখাইন। মেয়ে মাওয়েনসে ও ছেলে বউ য়িয়ি রাখাইনকে নিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। ওই জমিতে এলাকার ভূমিদস্যুখ্যাত আব্দুর রহিম ওরফে কাড রহিম ২৫-৩০ লাঠিয়াল নিয়ে হামলা চালায়।

জমির রোপন করা আমন চারা উপড়ে ফের রোপনের কাজ শুরু করে। মাজাফ্রু নিজে মেয়েসহ ছেলে বউকে নিয়ে বাধা নিষেধ করায় তাদেরকে মারধর করা হয়। কাদার মধ্যে চেপে ধরা হয়। ওড়না গলায় পেচিয়ে ধরা হয়। তার স্বজনরা থানা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে এদেরকে রক্ষা করে।

রোববার বেলা ১১টার সময়ে ঘন্টাব্যাপী এমন তান্ডবে দিশেহারা হয়ে গেছে এ সংখ্যালঘু রাখাইন পরিবার। সোনাপাড়া মৌজার এসএ ২৬৯ নম্বর খতিয়ানের তিন একর ২৪ শতক জমিতে দখলের চেষ্টা চালায় রহিম গং।

বর্তমানে রাখাইন এ পরিবারটি আছেন চরম আতঙ্কের মধ্যে। তারা কলাপাড়া পৌরশহরের এক আত্মীয়ের বাসায় অবস্থান করছেন। মাজাফ্রু জানান, তার স্বামীর জীবদ্দশায় এসব জমি নির্বিঘেœ চাষাবাদ করে আসছেন। এবছর হঠাৎ চিহ্নিত ভূমিদস্যুচক্র হামলে পড়েছে।

রাতে কলাপাড়া হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসার পরে রাখাইন মাওয়েনসে একটি মামলা করেছেন। যেখানে আব্দুর রহিম হাওলাদারসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে আসামি করা হয়েছে। তবে পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। কলাপাড়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম জানান, মামলা হয়েছে।

আসামি গ্রেফতারে দুই দফা অভিযান চালানো হয়েছে। পলাতক থাকায় সম্ভব হয়নি। মাজাফ্রুর অভিযোগ এচক্র তাদেরকে উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রাণির জন্য ধামকি দিয়ে আসছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *