বান্দরবানের লামায় এক আদিবাসী কিশোরী ধর্ষিত

বান্দরবান জেলার লামা উপজেলাধীন ৫নং ইউনিয়নের টংগাঝিরি গ্রামে ১৩ আগস্ট ২০১৬ সকাল ১০টায় সেটেলার বাঙালি কর্তৃক এক আদিবাসী কিশোরী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। কিশোরীটি কম্পোনীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামের একটি পেজ থেকে জানা যায়, ঘটনার দিন সকালে ওই ছাত্রী প্রতিদিনের মতো বাড়ি থেকে স্কুলের উদ্দেশ্যে বের হয়। মাঝ রাস্তায় ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেল চালক সেটেলার মো: মোস্তাক ওই ছাত্রীকে পথে একা পেয়ে ঝাঁপটে ধরে এবং টেনে হিঁচড়ে পার্শ্ববর্তী জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। ধর্ষক সেটেলার মো: মোস্তাক চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানাধীন ৪ নং পুটিবিলা ইউনিয়নের ওয়াজউদ্দিন সিকদার পাড়ার মো: এজাহার মিয়া ছেলে বলে জানা গেছে।
ধর্ষণের শিকার ঐ কিশোরী বাড়িতে এসে ঘটনা সম্পর্কে তার মা-বাবাকে জানালে কিশোরীর বাবা বিচার চেয়ে এলাকার গণমান্য ব্যক্তি ও জনপ্রতিনিধিদের ঘটনাটি জানান। কিন্তু সেটেলার বাঙালিরা ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে মীমাংসার জন্য চেষ্টা করে এবং ওই ছাত্রীর বাবাকে মামলা না করার জন্য ভয়-ভীতি দেখায় বলেও জানা গেছে।
এলাকাবাসীর পরামর্শে ওই ছাত্রীর অভিভাবকরা লামা থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশও মামলা নিতে নানাভাবে গড়িমসি করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে ওই ছাত্রীর বাবা তার মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে বলে লামা থানায় এজাহার দায়ের করতে বাধ্য হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *