জাতীয়

‘স্বাধীন মত প্রকাশের বিরুদ্ধে এত আইন কেন?’ সম্পাদক পরিষদ

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে এত আইন কেন? স্বাধীন মত প্রকাশের বিরুদ্ধে এত আইন কেন?

উল্লিখিত প্রশ্নগুলো উঠেছে বাংলাদেশের মুদ্রিত সংবাদপত্রগুলোর সম্পাদকদের সংগঠন সম্পাদক পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভা থেকে।

বিজ্ঞাপণ

আজ শনিবার বিকেলে ‘বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস: ডিজিটাল নজরদারিতে সাংবাদিকতা’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে।

ওই আলোচনা সভায় অংশ নেওয়া বিভিন্ন মুদ্রিত সংবাদপত্রের সম্পাদক ও সাংবাদিক নেতাদের ভাষ্য হলো, গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধের পাশাপাশি সাংবাদিকদের স্বাধীনতা হরণ ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা সংকুচিত করে তোলার জন্য অতীতেও বিভিন্ন আইন কার্যকর ছিল। এর সঙ্গে আগে থেকেই ক্রিয়াশীল তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের পাশাপশি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ডাটা সুরক্ষা আইন, গণমাধ্যমকর্মী আইন ও ওটিটি নীতিমালার মতো নানা আইন ও নীতিমালা সংযুক্ত হয়েছে কিংবা হতে যাচ্ছে।

তারা বলছেন, এসব আইন ও নীতিমালা নামে ভিন্ন হলেও এগুলোর যে পরিধি, তাতে মত প্রকাশের স্বাধীনতায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। এসব আইনের মাধ্যমে একটি ভয়ের বাতাবরণ তৈরি করা হচ্ছে। তা বাদে সাংবাদিকদের স্বাধীনতা হরণ করার পাশাপাশি এসব আইন খোদ সংবাদকর্মীদের বিরুদ্ধেই প্রয়োগ করার সুযোগ তৈরি হচ্ছে। এভাবে গণমাধ্যমের হাত-পা বেঁধে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের বিকাশ হবে না। গণতন্ত্রকে ব্যাহত করার এই প্রক্রিয়াটি মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী।

বিজ্ঞাপণ

এ অবস্থায় এই ‘অবরুদ্ধ’ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে সংঘবদ্ধভাবে একটি রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লড়াই শুরুর আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

গত ৩ মে পালিত হয় ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে বা বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিল জার্নালিজম আন্ডার ডিজিটাল সিজ বা ডিজিটাল নজরদারিতে সাংবাদিকতা। ডিজিটাল নজরদারি বা আক্রমনের মুখে বিশ্বজুড়ে সাংবাদিকতা যে হুমকি মোকাবিলা করছে সে বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়েই এবারের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়।

সম্পাদক পরিষদের ভাষ্য, সম্প্রতি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনও বাংলাদেশে স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য এক নতুন চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে সাংবাদিকতায় স্বাধীন ও নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিতে আলোচনার জন্য উল্লিখিত বিষয়টিকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

সম্পাদক পরিষদের সভাপতি ও দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজপেপার্স ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) সভাপতি এ কে আজাদ, সম্পাদক পরিষদের সহ-সভাপতি ও নিউ এজ’র সম্পাদক নূরুল কবির, সম্পাদক পরিষদের সহ-সভাপতি ও ভোরের কাগজ’র সম্পাদক শ্যামল দত্ত, সম্পাদক পরিষদের কোষাধ্যক্ষ ও মানবজমিন’র সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, আজকের পত্রিকা’র সম্পাদক গোলাম রহমান, বিএফইজে’র একাংশের সভাপতি ওমর ফারুক, বিএফইজে’র একাংশের সভাপতি এম আবদুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের সভাপতি কাদের গণি চৌধুরী ও একাংশের সাধারণ সস্পাদক আকতার হোসেন ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু।

আলোচনা সভাটি সঞ্চালনা করেন বণিক বার্তা’র সম্পাদক ও সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ। উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলো’র সম্পাদক মতিউর রহমানসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের কর্মীরা।

তথ্যসূত্র: ডেইলি স্টার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please Disable Your Ad Blocker.