সোশ্যাল মিডিয়া আইপিনিউজ-

শ্রীপুরে এক হদি নিরাপত্তাকর্মীতে হত্যা: অভিযুক্ত রুমমেট ও সহকর্মী জয় পলাতক

গত ১০ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর থানার ধনুয়া উত্তর পাড়ার আবেদ আলীর ভাড়া বাসায় রুমমেট শফিকুল আলম জয় (২৮) এর ছুরির নির্মম আঘাতে জীবন চন্দ্র বিশ্বাস (২৮) নামে একজন হদি আদিবাসী সম্প্রদায়ের নিরাপত্তাকর্মী যুবক হত্যার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হত্যার শিকার ব্যক্তি ও অভিযুক্ত ব্যক্তি উভয়ই এইজিস সিকিউরিটি সার্ভিস লি: এর অধীনে গাজীপুর জেলার শ্রীপুরের জৈনা বাজার হাজী মার্কেট নামক স্থানে রেনেটা ফ্যাক্টরীতে নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে চাকরি করতো।

নিহত জীবন চন্দ্র বিশ্বাসের স্থায়ী বাড়ি শাকের আটি, ৪ নং গালাগাঁও ইউনিয়ন, তারাকান্দা থানা, ময়মনসিংহ জেলায়। পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তি জীবন চন্দ্র বিশ্বাসের এ আকষ্মিক হত্যার ঘটনায় স্ত্রী, ছেলেমেয়ে ও আত্মীয়-স্বজন হতবাক ও অসহায় হয়ে পড়েছে। তারা এ নির্মম হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার চান।

অভিযুক্ত জয়

নিহতের ছোট ভাই সুমন চন্দ্র বিশ্বাস গত ১২ ফেব্রুয়ারি শ্রীপুর থানায় প্রদানকৃত এজাহার পত্রে বলেন, “গত ৯ ফেব্রু আমার ভাই জীবনের সাথে বিবাদী শফিকুল আলম জয় (স্থায়ী ঠিকানা- হোসেনপুর, নেত্রকোনা) এর সিগারেট সেবন করাকে কেন্দ্র করে একটা ঝগড়া বিবাদের সৃষ্টি হয় যা এইজিস সিকিউরিটি সার্ভিস লি: এর সুপারভাইজারের সহযোগিতায় ঐদিনই মীমাংসা করে দেয়া হয়। কিন্তু পরদিন ১০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় জীবন বিশ্বাস ওই ভাড়া বাসায় বিশ্রাম নিতে থাকলে, সন্ধ্যে সাড়ে ৭টার দিকে বিবাদী শফিকুল আলম জয় রুমমেট জীবনকে ডাক দিয়ে দরজা খুলতে বলে এবং সে দরজা খুলে দিলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ি হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো ছুরি দিয়ে জয় জীবনের পেটে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। এরপর আহত জীবনের আর্তচিৎকারে অপর রুমমেট হিজবুল্লাহ জেগে ওঠে এগিয়ে আসে সেসময় বিবাদী জয় দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে হিজবুল্লাহ, ও তাদের সুপারভাইজার এবং এক সিনিয়র গার্ড আহত জীবনকে স্থানীয় ডাক্তার দেখিয়ে ময়মনসিংহ হাসপাতালে রাত ১০:৫৫ মিনিটে নিয়ে পৌঁছালে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।”

এরপর লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন পাওয়ার পর ধর্মীয় রীতিতে বাড়িতে লাশের সৎকারের ব্যবস্থা করার পর ১২ তারিখ একটি হত্যা মামলার দায়েরের উদ্দেশ্য শ্রীপুর থানায় এজাহার দাখিল করে নিহতের ছোটভাই সুমন চন্দ্র বিশ্বাস।

সুমন চন্দ্র বিশ্বাস জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর ইতোমধ্যে শ্রীপুর থানার এসআই ঘটনাস্থলে গিয়ে বিভিন্নজনকে জিজ্ঞাসাবাদসহ ঘটনার অনেক আলামত গ্রহণ করেছেন এবং আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছেন।

বাংলাদেশ হদি ক্ষত্রিয় কল্যাণ পরিষদের সভাপতি লিটন দেবসেন বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে শ্রীপুরে নিরাপত্তী কর্মী হিসেবে কর্তব্যরত আমাদের এক নিরীহ হদি আদিবাসী সম্প্রদায়ের যুবক কে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে হত্যাকারীকে দ্রুত গ্রেফতারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।

শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত

Leave a Comment

Your email address will not be published.

আইপিনিউজের সকল তথ্য পেতে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন